/ Labels: , , , ,

আপনার জন্ম তারিখ দিয়ে জেনে নিন আপনার ব্যক্তিত্ব

প্রত্যেকটি মানুষেরই নিজস্ব ব্যক্তিত্ব ও সত্ত্বা রয়েছে৷ এই কারণেই প্রত্যেকেরই চিন্তা-ভাবনাও আলাদা৷
কিন্তু, প্রশ্ন হল মানুষের ভাগ্য কি তার জন্মের সময় থেকেই নির্ধারিত হয়ে যায়৷ মানুষের নিজস্ব আচার-আচরন জিনগত বৈশিষ্ট থেকে আসে৷ জ্যোতিষীরা বলেন, মানুষের আচার আচরণ ও চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ওপরে  জন্ম তারিখের এক ধরণের প্রভাব রয়েছে৷ যদিও অনেকেই এতে বিশ্বাস করেন না৷ কিন্তু, একই জন্মগত তারিখের মানুষদের মধ্যে চারিত্রিক বৈশিষ্টের বেশ কিছু মিল পাওয়া যায়৷

comments (0) / Read More

/ Labels: , , , , ,

বাংলা বাৎসরিক রাশিফল ২০১৫-বৃষরাশি

বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল-২১ মে)

অধিপতি গ্রহ : শুক্র। শুভ গ্রহ : শনি ও বুধ। অশুভ গ্রহ: রবি। শুভদিন: শুক্রবার ও সোমবার। শুভ সংখ্যা: ৬, ১৫, ২৪ মাঝে মাঝে ২, ১১, ২০। শুভ রং: হলুদ, নীল ও সাদা।
এক ঝলকে
বৃষরাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে আবেগ প্রবণতা, বাস্তববাদিতা, উদারতা, সৌখিন মেজাজ, সঙ্কল্প দৃঢ়তা ছাড়াও আকর্ষণীয় শক্তি প্রবল। শুক্রের জাতক-জাতিকা এবং চন্দ্রের প্রভাবমুক্ত বৃষ রাশি জন্য ২০১৫ আর্থিক সুযোগ প্রায়ই সৃষ্টি হবে। শিল্পী ও সাহিত্যিকদের সুনাম বাড়বে। বৈদেশিক বাণিজ্যে অন্যের সহযোগিতা বাড়বে। সময়কে কাজে লাগানোর পূর্বপরিকল্পনার প্রয়োজন হবে সেই দিকে সৃষ্টি রাখুন। নতুন কোনো ব্যবসার সূচনা হবে মার্চের ১৮ থেকে আগস্টের ৬ তারিখ পর্যন্ত। কথায় এবং কাজে সতর্ক থাকতে হবে আপনাকে প্রেমের ক্ষেত্রে। চাকরি যারা করেন তাদের জন্য নতুন সম্ভাবনার সৃষ্টি হবে। আর্থিক সুযোগও বাড়বে। ৫ জুন থেকে ২১ আগস্ট পর্যন্ত এবং নভেম্বর ও ডিসেম্বর। পারিবারিক সদস্যদের সঙ্গে সৌজন্য বজায় রেখে চলুন, যাতে আপনার কোনো ভুল সিদ্ধান্ত পারিবারিক জটিলতার কারণ না হয়। রাজনীত যারা করেন তাদের এ বছর যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হবে। বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিশেষ করে জানুযারি থেকে এপ্রিল, অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর। অশুভ সময় জানুয়ারী ১৭-২০, মার্চ ৫-২২, নভেম্বর ২-২১, ডিসেম্বর ১৭-৩১। গত বছরের মত সমস্যা এবং অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন এ বছরে আর আপনাকে হতে হবে না , বরং বৃহস্পতির প্রভাবে এ বছর আরও শান্তিপূর্ণ হবে।
সাধারণ
বৃষ রাশির জাতকদের জন্য দারুণভাবে শুরু হবে ২০১৫ সাল। তৃতীয় ঘরে বৃহস্পতি থাকার কারণে যোগাযোগ, সাহস বাড়বে। কম দূরত্বে ভ্রমণ হতে পারে, লেখা, ব্যবসা ও মিডিয়া সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের জন্য এই বছর বিশেষভাবে শুভ। যারা কলা, অভিনয় ও সঙ্গীতের সঙ্গে যুক্ত তারা এই বছর কোনও বিশেষ প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেদের দক্ষতা বাড়াতে পারেন। সেইসঙ্গেই সপ্তম ঘরে বৃহস্পতির প্রভাব থাকায় বিয়ে ও প্রণয়ের ক্ষেত্রেও বৃষ রাশির জন্য ২০১৫ খুবই ভাল বছর। বর্ষারম্ভকালে বৃষরাশির জাতক-জাতিকাদের ভাগ্যলক্ষ্মীর প্রসারতা লক্ষ্যণীয়। এ বছর ব্যবসা-বাণিজ্য এবং কর্মক্ষেত্রে প্রভূত যশ-সম্মান এবং অর্থ লাভের সম্ভাবনা প্রবল। অপরদিকে অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যয়ও হ্রাস পেয়ে সঞ্চয় বৃদ্ধি পাবে। বৃষরাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য বছরটি সম্ভাবনাময়। বিশেষ করে প্রেমিক যুগলদের সফলতা, প্রাপ্ত বয়স্কদের বা বিবাহযোগ্যদের বিবাহের যোগ ছাড়াও সম্ভাব্য ক্ষেত্রে নবদম্পতিদের সন্তান লাভের সম্ভাবনা রয়েছে।
নবম ঘরে বৃহস্পতির প্রভাবে বাবা, শিক্ষকের সঙ্গে সম্পর্ক ভাল হবে। দূরে ভ্রমণ বা তীর্থ যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিদেশে ভ্রমণের সম্ভাবনাও উজ্জ্বল। সুযোগ হারাবেন না। বৃহস্পতির প্রভাবে একাদশ ঘর সংক্রান্ত বিষয়েও উন্নতি সম্ভাবনা রয়েছে। আয় বাড়তে পারে, নতুন যোগাযোগ হতে পারে, বন্ধুর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাবে এই বছর।
সপ্তম ঘরে শনি থাকায় বিয়ে বা প্রণয়ের অগ্রগতিতে কিছুটা দেরি হতে পারে। চিন্তা করবেন না। এই সময় আপনার ধৈর্য্য ও শৃঙ্খলা বাড়বে। পঞ্চম ঘরে ভালবাসা ও সৃজনশীলতার স্থানে রাহু থাকায় প্যাশন বাড়বে। তবে এই বছর সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে, সততাও জরুরি। কাজের চাপ বাড়তে পারে। ব্যবসায় উন্নতি ও মামলা জেতার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এই বছর নিয়মিত শরীরচর্চা ও ডায়েটের দিকে খেয়াল রেখে সুস্থ থাকা জরুরি। নিয়মিত স্বাস্থ্যের যত্ন নিন।
বছরের দ্বিতীয়ার্ধে সিংহের ঘরে প্রবেশ করেছ বৃহস্পতি। ফলে চতুর্থ ঘরে বৃহস্পতি থাকার কারণে এই সময় মায়ের সঙ্গে সম্পর্ক ভাল হবে। নতুন বাড়ি, গাড়ি কেনার সম্ভাবনাও রয়েছে। অষ্টম ঘরে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকার কারণে জ্যোতিষ, পদার্থবিদ্যা, মহাকাশ ও মনোবিদ্যায় উৎসাহ বাড়তে পারে। বছরের মধ্য ভাগে অর্থাৎ আগস্টের শুরুতে পিতা-মাতা ছাড়াও পরিবারের কারো স্বাস্থ্যহানি বা চিকিৎসাজনিত কারণে প্রচুর অর্থ ব্যয় হতে পারে। এবং ঐ সময়ের মধ্যে প্রবাসে অবস্থানরত স্বজন প্রত্যাবর্তন লক্ষ্যণীয়। অক্টোবরের শেষ দিকে স্বজন কলহ, মামলা বা আইনি জটিলতা, প্রাতিষ্ঠানিক সুনাম ক্ষয়, কিংবা প্রত্যাশিত শোক, দুঃখ-দুর্দশা সূচিত হতে পারে। ঠিক ঐ সময়ের ভেতর কোনো কারণে অর্থনাশের সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় ধার বা বিনিয়োগে যথেষ্ট সচেতন থাকতে হবে।
এই রাশির জাতক জাতিকাদের বিগত বছরের কিছু সমস্যার ভার লাঘব হবে। বছরের কয়েকটি মাসে মন কিছুটা চঞ্চল হলেও বাকি সময় শান্তি বজায় থাকবে। গুরুজনদের প্রতি শ্রদ্ধা বজায় থাকলে তাদের আশীর্বাদে জীবনে নতুন নতুন আনন্দের ঘটনা যুক্ত হবে। শরৎকাল আপনার জন্য একটি অত্যন্ত স্থিতিশীল সময় হবে। গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য এটিই হবে আদর্শ সময়। যদি আপনার দীর্ঘদিনের লালিত কোনো স্বপ্ন থাকে, তবে এটা বাস্তবায়নের জন্য এটিই সঠিক সময়।
স্বাস্থ্য
বৃষ জাতক জাতিকাদের স্বাস্থ্য ভালোই যাবে। তবে ৪২-৫৫ এই বয়সের জাতকদের ক্ষেত্রে কোলেস্ট্রল, উচ্চরক্তচাপের সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। ওই একই বয়সের জাতিকাদের স্ত্রীরোগজনিত কিছু সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার যোগ আছে। শারীরিক ব্যাপারটা ওঠানামার মতো, কফ, বাত, রক্তচাপ, ধাতুগত রোগ ও হার্টের রোগীরা মাঝে মাঝে ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে পারে। কেউ কেউ আবার শয্যাশায়ীও হতে পারেন।
পরিবার
সম্পত্তি নিয়ে পরিবারে কিছুটা সমস্যার যোগ আছে। গুরুজনদের সঙ্গে বড় কোনো সমস্যা না হলেও তাদের কোনো মতের সঙ্গে আপনার মতের অমিল হতে পারে। সন্তানদের নিয়ে বিশেষ সমস্যা দেখা যাচ্ছে না। সম্পর্কের ক্ষেত্রে বিশেষ করে বছরের শুরু এরাশির জন্য খুব ভালো কাটবে । যাই হোক পুরোনো বিবাদ ভুলে শান্তিতে কথা বলুন যা ইতিমধ্যে হয়ত আপনি ভুলেও গেছেন । এই সময়ের মধ্যে নতুন সংযোগ স্থাপন করতে চেষ্টা করবেন না, পরবর্তীতে গোপন ঘটনা সামনে আসতে পারে । বছরের মাঝামাঝিতে আপনার সঙ্গীর সঙ্গে সামান্য বিরোধ হতে পারে, কিন্তু আপনি শান্তিপূর্ণভাবে সবকিছু সমাধান করতে পারেন আর একবারের জন্য জেদ না করা এর উদাহরণ হতে পারে । বিশেষ করে বসন্তে পরিবারের সঙ্গে সম্পর্কের প্রতি মনযোগী হন । কারো আপনার পরামর্শ এবং সাহায্যের প্রয়োজন হতে পারে।
বছরের মধ্য ভাগে অর্থাৎ আগস্টের শুরুতে পিতা-মাতা ছাড়াও পরিবারের কারো স্বাস্থ্যহানি বা চিকিৎসাজনিত কারণে প্রচুর অর্থ ব্যয় হতে পারে। এবং ঐ সময়ের মধ্যে প্রবাসে অবস্থানরত স্বজন প্রত্যাবর্তন লক্ষ্যণীয়। অক্টোবরের শেষ দিকে স্বজন কলহ, মামলা বা আইনি জটিলতা, প্রাতিষ্ঠানিক সুনাম ক্ষয়, কিংবা প্রত্যাশিত শোক, দুঃখ-দুর্দশা সূচিত হতে পারে। ঠিক ঐ সময়ের ভেতর কোনো কারণে অর্থনাশের সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় ধার বা বিনিয়োগে যথেষ্ট সচেতন থাকতে হবে।
শিক্ষা
ছাত্রদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ যাত্রার যথেষ্ট যোগ দেখা যাচ্ছে। শিক্ষাক্ষেত্র রাশিচক্রে শুভযোগে অবস্থান করছে। শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতামূলক জয়লাভ এবং উচ্চ শিক্ষায় বিশেষ সাফল্য আশা করা যায়। সন্তানদের বিবাহ, অধ্যয়ন, ক্যারিয়ার সংক্রান্ত ঝামেলার অবসান হতে পারে। কারো কারো নতুন বন্ধুত্ব বা আত্মীয় বৃদ্ধি পাবে।
ব্যবসা ও চাকরি
বৃষ লগ্নের অধিপতি গ্রহ শুক্র। কিছু বিশেষ ধরনের ব্যবসা শুক্রের শুভ প্রভাবে প্রভাবিত হয়। এর মধ্যে আমদানি-রপ্তানি ব্যবসা শুভ। এছাড়াও ইমারতি দ্রব্যের ব্যবসায় বৃষ রাশির জাতকদের লাভ হওয়ার যোগ আছে। লাভ হবে কাঁচামাল সরবরাহের ব্যবসায়ও। কর্মক্ষেত্রে আপনি ভাল করবেন প্রধানত বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকে। শুরুতে হয়ত আপনি অলসতায় গা ভাসিয়েছেন একটু এবং আপনার কর্মজীবনে স্থবিরতা এসেছে। এই বসন্তে পরিবর্তন আনুন। যদি আপনি খুব সৃজনশীল নাও হন, আপনি আপনার সহকর্মীর পরিকল্পনায় সাহায্য করতে পিছপা হবেন না । যদি একত্রে কাজ শুরু করেন এবং যথেষ্ট চেষ্টা ও সময় ব্যয় করেন আপনার প্রকল্পের পেছনে, তবে আপনি বৃহৎ লক্ষ্য অর্জনে সামর্থ্য হবেন। আকর্ষনীয় আর্থিক পুরস্কার আপনার জন্য অপেক্ষা করছে । সেই সুবাদে আপনার বহু আকাঙ্খিত উপাদানের পটভূমি তৈরি হবে। বছরের মাঝখানের সংঙ্কট কাটিয়ে উঠে আপনি ভালভাবে গ্রীষ্মের ছুটি উপভোগ করবেন । আপনি নতুন শক্তিতে পূর্ণ হয়ে ফিরে আসবেন এবং আবার খুব উদ্যমী হবেন। হয়তো এই মুহূর্তে বৃষের কর্মোদ্যম অপেক্ষা করে আছে।
প্রেম ও রোমান্স, বিয়ে ও দাম্পত্য
রাশিচক্রের দ্বিতীয় ঘর বৃষ রাশি। পঞ্চমপতি কন্যা রাশি। উভয়ই মৃত্তিকা রাশি। বৃষ, কন্যা ও মকর রাশির মধ্যে প্রেম ও বিয়ের সম্পর্ক শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মৃত্তিকা রাশির সঙ্গে জল রাশির সম্পর্ক শুভ হয়।
জুলাইয়ের ২২ তারিখে কন্যা রাশিতে প্রবেশ করবে শুভগ্রহ বৃহস্পতি। চতুর্থ থেকে পঞ্চমে বৃহস্পতির প্রবেশে বছরটি হয়ে উঠবে স্মরণীয়। বছরের প্রথমার্ধে পরিবারে নতুন সদস্যের আগমন ঘটতে পারে। পুরো বছরটি বিয়ের জন্য শুভ সম্ভাবনাময়। ফলে অবিবাহিতদের বিয়ের প্রচেষ্টা সফল হতে পারে।
জুলাইয়ে নবমে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় বিদেশে উচ্চশিক্ষার দ্বার খুলে যেতে পারে।
কাজে বিড়ম্বনা থাকলেও ধৈর্য নিয়ে এগুতে হবে। আপাতত বিড়ম্বনার পেছনেই সাফল্যের গোপন রহস্য লুকিয়ে আছে। বলা যেতে পারে আপনি জীবনে সফল হওয়ার মূলসূত্র বা পাসওয়ার্ড হাতে পেতে চলছেন। সহজেই যে তা পেয়ে যাবেন তা নয়। আপনাকে নিরলস প্রচেষ্টা ও ধৈর্যসহকারে এগিয়ে চলতে হবে।
বছরজুড়ে সম্ভাবনাময় একেকটি বাধা বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে অতিক্রমের মাধ্যমে আপনি প্রেম ও বিয়ের সম্পর্কে সফল হবেন বলে আশা করা যায়।
বৃষরাশির ক্ষেত্রে প্রেমযোগ শুভ। নতুন প্রেমের সম্ভাবনা আছে। নতুন বছরে প্রেমের ভুল বোঝাবুঝির সমস্যা কেটে যাবে। দাম্পত্য জীবন সুখের থাকবে। তবে দাম্পত্য জীবনে তৃতীয় ব্যক্তির মতামত প্রকাশের সুযোগগুলি বন্ধ করতে হবে। গ্রীষ্মে আপনার একটি অবিস্মরণীয় অবকাশের অভিজ্ঞতা হবে, যার পর আপনার ভালোবাসা সম্পর্কে আর কিছু চিন্তা করতে হবে না। সবকিছু ঠিক থাকবে।

comments (0) / Read More

/ Labels: , , , , ,

বাংলা বাৎসরিক রাশিফল ২০১৫-মেষরাশি

মেষ: (২১ মার্চ – ২০ এপ্রিল)
অধিপতি গ্রহ : মঙ্গল। শুভ গ্রহ : রবি, চন্দ্র, মঙ্গল ও শুক্র। অশুভ গ্রহ : বুধ। শুভদিন: মঙ্গলবার। শুভ সংখ্যা: ৩, ৯, ১২, ১৮, ২৭, ৩০। শুভ রং : লাল ও সাদা।
এক ঝলকে
২০১৫ মেষরাশির জন্য হবে পরিবর্তনের বছর। এ বছর আপনি আপনার কর্মক্ষেত্রে এবং ব্যক্তিগতজীবনে সফল হবেন । মঙ্গলের জাতক-জাতিকা মেষ রাশির ২০১৫ যথেষ্ট ঘটনাবহুল হবে। যোদ্ধা মঙ্গল শনির বছরে সহজেই ভুল সিদ্ধান্ত নেবে। মার্চ ও আগস্ট মাসে সুযোগ আসবে ব্যবসাক্ষেত্রে। বৈদেশিক বাণিজ্যে সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। প্রেমের ক্ষেত্রে ফেব্রুয়ারির ১৮ থেকে আগস্টের ১৫ পর্যন্ত জটিলতা আসবে। ৮ মে থেকে ১৭ জুন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগতে পারেন। উচ্চ রক্তচাপ যাদের তাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে। রাজনীতি ক্ষেত্রে নতুন সুযোগ সৃষ্টি হবে। বছরের শুরু হতেই নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে ফেব্রুয়ারির ১৯ থেকে এপ্রিলের ২৩ পর্যন্ত সতর্ক হয়ে কথা বলুন ও কাজ করুন। চাকরিতে সম্ভাবনার সৃষ্টি হবে। বিদেশ যাত্রার সুযোগও আসতে পারে মে থেকে নভেম্বরের মধ্যে। পারিবারিক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। পারিবারিক কোনো সদস্যের অসুস্থতা বা মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে, যা আপনাকে কিছুটা আর্থিক ঝুঁকিতে ফেলবে। অশুভ সময় জানুয়ারি ১২-১৯, জুন ১৬ থেকে জুলাই ৩১, ডিসেম্বর ১৬-২০। শুভ রঙ যে কোনো উজ্জ্বল বর্ণ। কালো বা কালচে রঙ বর্জন করতে হবে আপনাকে।
সাধারণ
২০১৫ সাল মেষ রাশির জাতক জাতিকার জন্য শুভ। বছরের সূচনাতে নানাবিধ কারণে মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য শুভ ফল আশা করা যায়। কর্মে পদোন্নতি, বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি, বিদেশ গমন ও ব্যবসায় প্রচুর লাভের সম্ভাবনা বিদ্যমান। ধনপতি ও সপ্তমপতির শুভ প্রভাবে প্রেমিক যুগলের মিলন, অবিবাহিতদের বিবাহ অথবা বৈবাহিক সূত্রে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কর্কট রাশির ঘরে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় ঘরে শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় থাকবে। মেষ রাশির জাতকদের বছরের প্রথমার্ধে নতুন বাড়ি, গাড়ি লাভের সম্ভাবনাও প্রবল। মায়ের সঙ্গে সম্পর্ক আরও ভাল হবে, মায়ের শরীর স্বাস্থ্য ভাল থাকবে।
তবে এই বছর মেষ রাশির জাতকদের হঠাৎ শরীর খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। স্বাস্থ্যের দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। কাজের ক্ষেত্রে বেশ কিছু নতুন সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দ্বাদশ ঘরে কেতুর দৃষ্টি থাকায় কাজের জন্য, ঘুরতে বা তীর্থের জন্য বিদেশভ্রমণের সুযোগও রয়েছে এই বছর। মার্চের পর থেকে নতুন গৃহ নির্মাণ, আসবাবপত্র ক্রয়, যানবাহন কিংবা অলঙ্কার প্রভৃতি ক্রয় বা প্রাপ্তিতে লাভবান হবেন। আগস্টের শুরু থেকে সময় কিছুটা বৈরী এবং মন্দভাবাপন্ন সূচিত হতে পারে। চলাফেরায় সাবধান হতে হবে। হঠাৎ অসুস্থতা কিংবা দুর্ঘটনাজনিত রক্তপাতের আশঙ্কা প্রবল। অক্টোবর মাস আসার আগ পর্যন্ত আকস্মিক কারণে সম্পদ নাশ বা হস্তচ্যুত হতে পারে।
বছরের দ্বিতীয়র্ধে বৃহস্পতি থাকবে সিংহ রাশির ঘরে। মেষ রাশির পঞ্চম ঘরে বৃহস্পতি থাকার কারণে সন্তান, সৃজনশীল কাজকর্ম, ব্যবসা ও প্রণয়ের জন্য এই সময় খুব ভাল। যাদের এই সময় বিদেশ যাত্রার পরিকল্পনা রয়েছে বা আন্তর্জাতিক মার্কেটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত তাদের জন্য বছরের এই সময় খুব ভাল। বাবা, শিক্ষক ও গুরুর সঙ্গে সম্পর্কে উন্নতি হবে। আত্মবিশ্বাস ও উদ্যম বাড়বে। ফলে ব্যক্তিত্বে পরিবর্তন আসবে যা উন্নতির সহায়। শুক্রের প্রভাবে এই সময় পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সম্পর্ক ভাল হবে।
বছরের শেষার্ধে শনির প্রভাবে আর্থিক চাপ যেতে পারে। এই সময় খরচ সম্পর্কে সচেতন থাকা প্রয়োজন। তবে রোগমুক্তি, মামলা জেতার সম্ভবনা রয়েছে। চাইলে এই সময় নতুন ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কাজের ক্ষেত্রে পদোন্নতির সম্ভাবনাও রয়েছে। সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর মাসের মধ্যে সহকর্মীদের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির জেরে কিছু কাজ দীর্ঘায়িত হতে পারে।
স্বাস্থ্য
শনি অষ্টম ঘরে এবং রাহু ষষ্ঠ ঘরে থাকাতে আপনি আপনার পরিবার এবং স্বাস্থ্যের দিক থেকে নিরুদ্বেগ থাকতে সক্ষম নাও হতে পারেন। আপনি এই বিষয়ে চিন্তিত থাকতে পারেন। মেষ জাতকদের স্বাস্থ্য নিয়ে খুব একটা সমস্যার সম্মুখীন না হতে হলেও যাদের মধুমেহ, খাদ্য নালির সমস্যা ও উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যা রয়েছে তাদের বছরের বিভিন্ন সময়ে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে হতে পারে। শারীরিক অধিকাংশ সময় মিশ্রভাবাপন্ন। ডায়াবেটিস, পক্ষাঘাত, বাত, পেটের পীড়াসহ সিজনাল রোগব্যাধির প্রকোপ বৃদ্ধি পাবে। হার্ট ও ব্লাডপ্রেসার, রোগীরা সর্বদাই স্বাস্থ্য সচেতন থাকতে হবে। শরতে শিলাবৃষ্টির সময় আপনার স্বাস্থ্যের প্রতি খেয়াল রাখবেন।
পরিবার
অগ্রজদের আশীর্বাদ বজায় থাকবে। কনিষ্ঠ ভাই বোনদের সঙ্গে সম্পর্কে কিছুটা বাধার যোগ দেখা যাচ্ছে। সন্তান চিন্তা দূর হবে। এ বছরে পরিবারে একাধিক আনন্দ অনুষ্ঠানের যোগ আছে। পিতা-মাতা বা নিকটজনের চিকিৎসার্থে অর্থ ব্যয় লক্ষ্যণীয়।
শিক্ষা
মেষরাশির ছাত্রদের জন্য নতুন বছর কিছু নতুন সম্ভাবনা নিয়ে হাজির হতে পারে। বিশেষ করে গবেষণার কাজে যারা যুক্ত তাদের জন্য এ বছর শুভ। উচ্চশিক্ষার সুযোগ আসতে পারে। যারা পড়াশোনা করছেন বা শিক্ষার সঙ্গে যুক্ত তাদের জন্য বছরের প্রথমার্ধ খুব শুভ। শিক্ষায় বিশেষ উন্নতি হবে, নতুন ডিগ্রি পেতে পারেন। অল্প বয়সী শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা কিংবা অন্য কারণে পরীক্ষার ফলাফল ভালো নাও হতে পারে।
ব্যবসা ও চাকরি
মেষরাশির লগ্নের অধিপতি গ্রহ মঙ্গল। লগ্নপতি মঙ্গল হওয়ায় যে ধরনের ব্যবসা আপনার পক্ষে লাভজনক ও শুভ বলে রাশিচক্রে প্রতীত হচ্ছে সেগুলি হলো কাঁচামাল, লোহার যন্ত্রপাতি, ইমারতি দ্রব্য ও ওষুধ। এই বছর আপনার পেশায় অনেক পরিবর্তন আনবে। গত বছর আপনি কঠোর পরিশ্রম করেছিলেন এবং ধৈর্যসহকারে অপেক্ষা করেছিলেন । এই বছর আপনাকে পরিশেষে পুরস্কৃত করা হবে। আপনার উচ্চাভিলাষীতার জন্য কর্মক্ষেত্রে অনেক ভালো ফল লাভ করতে পারেন। আপনি নেতৃস্থানীয় অবস্থানে নিজেকে প্রমাণ করারসুযোগ পেয়ে থাকবেন । বছরের অর্ধেকে কাছাকাছি মন্দা আসতে পারে। আপনি যদি অসহায়বোধ করেন, আপনার বন্ধুর পরামর্শ নিন ।
মার্চের পর থেকে নতুন গৃহ নির্মাণ, আসবাবপত্র ক্রয়, যানবাহন কিংবা অলঙ্কার প্রভৃতি ক্রয় বা প্রাপ্তিতে লাভবান হবেন। আগস্টের শুরু থেকে সময় কিছুটা বৈরী এবং মন্দভাবাপন্ন সূচিত হতে পারে। চলাফেরায় সাবধান হতে হবে। হঠাৎ অসুস্থতা কিংবা দুর্ঘটনাজনিত রক্তপাতের আশঙ্কা প্রবল। অক্টোবর মাস আসার আগ পর্যন্ত আকস্মিক কারণে সম্পদ নাশ বা হস্তচ্যুত হতে পারে। এছাড়া জানমালের ক্ষতির ব্যাপারে সতর্ক থাকা একান্ত আবশ্যক।
প্রেম ও রোমান্স, বিয়ে ও দাম্পত্য
দ্বাদশ রাশির প্রথম ঘর মেষ রাশি। অধিপতি গ্রহ মঙ্গল। পঞ্চমপতি সিংহ রাশি। দুটোই অগ্নি রাশি। মেষ, সিংহ ও ধনু রাশির জাতক জাতিকাদের মধ্যে প্রেম ও বিয়ের সম্পর্ক শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অগ্নি রাশির সঙ্গে বায়ূ রাশির সম্পর্কও মন্দ হয় না। এছাড়া জুলাই পর্যন্ত সিংহ রাশিতে বৃহস্পতির শুভ প্রভাব থাকায় এ সময় প্রেম রোমাঞ্চ বেশ শুভফলদায়ক হবে বলে আশা করা যায়। প্রেমের সম্পর্কে পারষ্পারিক সহযোগিতা ও অনুপ্রেরণা অনেক জীবনের জন্য ইতিবাচক পরিবর্তনের সুযোগ তৈরি করবে।
মেষে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় এ সময় অনেক সম্পর্ক পাকাপোক্ত হবে। এমনকি বিয়ের সম্ভাবনাও রয়েছে। তবে, জন্মলগ্ন ও চন্দ্রের অবস্থান ভেদে কারও ক্ষেত্রে সময়টি প্রতিকূল যেতে পারে। মেষ রাশি, মেষ লগ্ন ও মেষ রাশিতে চন্দ্রের অবস্থান থাকলে শুভফল পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
মেষ রাশির বেকারদের কর্মলাভের সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। এর পেছনে অবশ্য প্রিয় মানুষটির অনুপ্রেরণা যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কোন বাধার কাছে মাথা নত না করলেই জীবনে সফল হওয়ার পথে আপনি ধাপে ধাপে এগিয়ে যাবেন। সোজা কথায় প্রেমের সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে প্রেমিককে বাধ্য হয়ে কর্মের দিক ঝুঁকতে হবে। এক্ষেত্রে সফল হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।
প্রেমঘটিত কারণে জুলাইয়ের পরবর্তী সময়ে আপনার মানসিক চাপ বাড়তে পারে। প্রেমের সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি, পারষ্পারিক বিশ্বাসের অভাব ও তৃতীয় পক্ষের অনুপ্রবেশ সন্দেহের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। এমনকি সম্পর্কে ভাঙনের পর্যায়েও যেতে পারে। সব মিলিয়ে বছরের প্রথমার্ধে আপনার জন্য এ বিষয়গুলো অনুকূল হলেও দ্বিতীয়ার্থে আপনাকে সচেতন থাকতে হবে। সিদ্ধান্ত নিতে হবে ঠাণ্ডা মাথায়।
দাম্পত্যযোগে সমস্যার কোনো সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। দাম্পত্য নিয়ে পুরনো কোনো সমস্যা থাকলে তার সমাধান হয়ে যেতে পারে বলে রাশিচক্রে দেখা যাচ্ছে। মেষ জাতকদের প্রেমযোগ মধ্যম। প্রেম সফল হওয়ার পথে বেশ কয়েকটি বাধা দেখা যাচ্ছে। সেগুলিকে অতিক্রম করতে পারলে প্রেমে সফলতা আসবে। বসন্তের আগমনের সাথে সম্পর্কের উন্নতি হবে । সঙ্গীর সাথে আপনার ভালবাসা এবং সাদৃশ্যের ফুল ফুটবে। একাকীরা নিরাশ হবেন না। এই রোমান্টিক সময়ে তারা বিপরীত লিঙ্গের প্রতি চুম্বকের ন্যায় আচরণ করবে। বছরের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে সতর্কতা অবলম্বন করা আবশ্যক। আপনার গোঁড়ামির জন্য অন্য মানুষের সাথে বিবাদে জড়িয়ে পড়তে পারেন । স্বার্থপর না হওয়ার চেষ্টা করুন এবং আপনার প্রিয়তমার প্রতি যথেষ্ট মনোযোগ দিন।

comments (0) / Read More

/ Labels: , , , ,

বাংলা বাৎসরিক রাশিফল ২০১৫ - কর্কটরাশি

কর্কট: (২২ জুন – ২২ জুলাই)
অধিপতি গ্রহ : চন্দ্র। শুভ গ্রহ : চন্দ্র, মঙ্গল। অশুভ গ্রহ: বুধ। শুভদিন: সোমবার। শুভ সংখ্যা: ২, ৭, ১১, ১৬, ২০, ২৫, ২৯। শুভ রং: লাল, নীল, হলুদ ও মিশ্র।

এক ঝলকে
চন্দ্রের প্রভাবমুক্ত কর্কট রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য ২০১৫ আনন্দদায়ক ও স্পর্শকাতর হবে। শনির সম্ভাবনার সৃষ্টি করে। দেবদূত বুধের বুদ্ধি বা দুর্বুদ্ধি সম্ভাবনাকে অনেক সময় পিছিয়ে দেয়। শনি চন্দ্রকে আবেগ এবং বেগ দুটোই দিয়ে থাকে। শনির প্রভাবমুক্ত এই বছরটিতে তাই কর্কট রাশির জাতক-জাতিকাকে যথেষ্ট বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। 'ভাবিয়া করিও কাজ, করিয়া ভাবিও না' প্রবাদটি উপযুক্ত বিবেচিত হবে। পারিবারিক সদস্যদের সঙ্গে সম্পর্কে কিছুটা অবনতি ঘটতে পারে জুন-ডিসেম্বরে। চাকরি যারা করেন তাদের জন্য সুখবর আসতে পারে মে থেকে নভেম্বরের মধ্যে। প্রেমে স্বচ্ছতা দরকার হবে এ বছরের পুরো সময় জুড়েই। রাজনীতি যারা করেন তাদের অন্যের ওপর প্রভাব বিস্তার করা কিছুটা সহজ হবে এ বছর। ডায়াবেটিক ও উচ্চ রক্তচাপ বেশ জটিলতার ফেলতে পারে বলে সতর্ক থাকুন। বিশেষ করে মে, আগস্ট, নভেম্বর ও ডিসেম্বর। অশুভ সময় : মে ৭ থেকে জুলাই ৫, অক্টোবর ১৫ থেকে নভেম্বর ১১।
সাধারণ
কর্কট রাশির জাত ব্যক্তিরা স্বভাবতই ভাবপ্রবণ, সৌম্য, কর্তব্যপরায়ণ, দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, বন্ধুপ্রেমী এবং সমাজ গ্রহণযোগ্য পরোপকারী হয়ে থাকে। কর্কট রাশির জন্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে ২০১৫ সাল খুবই ভাল কাটবে। এই বছর নিজের দিকে নজর দিন। আত্মবিশ্বাস বাড়ার ফলে নতুন সুযোগ আসবে। খাওয়া দাওয়ার দিকে খেয়াল রাখুন। এই বছর আপনি স্পটলাইটে থাকবেন। যারা বিয়ের অপেক্ষায় রয়েছেন তাদের বিয়ে হতে পারে। সপ্তম ঘরে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় ব্যবসায় মক্কেল বাড়বে, যোগাযোগ বাড়বে। বিনোদন ও খেলার দিকে এই বছরের প্রথম ভাগে বিনিয়োগ করতে পারেন।
রাহু কন্যা রাশির ঘরে প্রবেশ করায় তৃতীয় ঘরের যোগাযোগ, লেখা, শিল্পকলা, ভ্রমণ, মিডিয়া সংক্রান্ত বিষয়ে সুফল লাভের সম্ভাবনা রয়েছে। ভাইবোনদের প্রতি স্নেহশীল থাকুন। উচ্চাকাঙ্ক্ষা আপনাকে মিডিয়া, প্রকাশনা ও মার্কেটিংয়ে সুবিধা দেবে। বৃশ্চিক রাশির ঘরে শনি থাকায় একাদশ ঘর কিছুটা বাধাপ্রাপ্ত হবে। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিংয়ে বাধা আসবে। লাভ বেশি হবে না। লক্ষ্য পূরণেও দেরি হতে পারে। ধৈর্য্য ধরা প্রয়োজন এই বছর।
এপ্রিল মাসের শুরুতে হতাশা কিছুটা লাঘব হলেও পরিবারের কোনো বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তির অসুস্থতা জনিত অর্থনাশের কারকতা লক্ষ্যণীয়।
জুনের মাঝামাঝি বন্ধু-বান্ধব বা কোনো নিকটাত্মীয়ের সহযোগিতায় অথবা নিজ বুদ্ধির কৌশলে আর্থিক উন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এ বছর অবিবাহিত বা বিবাহযোগ্য পুত্র-কন্যার বা ভাই-বোনের বৈবাহিক যোগসূত্র আশাপ্রদ। তবে প্রেমের ক্ষেত্রে তেমন কানো আশাপ্রদ নাও হতে পারেন।
জুলাই মাসের পর থেকে বৃহস্পতির প্রভারে আর্থিক সমস্যা কাটবে। বিদেশ যাত্রা বা আধ্যাত্মিক পড়াশোনায় ভাল সুযোগ আসবে। বাবা, শিক্ষক, গুরুর প্রতি যত্নবান হোন।
সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে হারানো ধন বা অর্থ এবং মানসম্মান পুনরুদ্ধার হতে পারে।
সম্পত্তি ক্রয়-বিক্রয় এবং এ সংক্রান্ত মামলা শুভপদ নয়। কর্ম ক্ষেত্রে কারো কারো বদলি দুঃখজনক। কর্মক্ষেত্রে অথবা নিজ কর্মে যথেষ্ট কৌশলী হতে হবে।
২০১৫ সালে কর্কট জাতক জাতিকাদের বেশ কয়েকটি স্বপ্ন পূরণ হওয়ার যোগ আছে। আধ্যাত্মিক উন্নতি হবে। মনে অশান্তি বজায় থাকবে। এ বছর জাতক জাতিকাদের প্রাপ্তিযোগ শক্তিশালী লক্ষ করা যাচ্ছে।
স্বাস্থ্য
খাদ্যনালি ও হজমের সমস্যা ২০১৫ সালে বারবার আপনাকে সমস্যায় ফেলবে। আপনার স্বাস্থ্যকে কখনই উপেক্ষা করবেন না । বাতের ব্যথার রোগীদের বছরের শুরু ও শেষের দিকটি থাকবে সমস্যাবহুল। চোখের সমস্যা ভোগাতে পারে। অস্ত্রোপচারের যোগ দেখা যাচ্ছে। ডায়াবেটিস, লিভার সমস্যায় হজমশক্তি হ্রাস, জননেন্দ্রিয় রোগে কষ্ট বৃদ্ধি পেতে পারে। বিশেষ করে মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকুন, কঠিন কাজ মধ্যে বিনোদনের জন্য কিছু মুহূর্ত বের করুন ।
পরিবার
সমস্যার কিছু যোগ পারিবারিক ক্ষেত্রে থাকলেও আপনি তা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। মোটের উপর পারিবারিক শান্তির বিঘ্নিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। পারিবারিক সমস্যা আপনার কর্মক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে। পারিবারিক সহযোগিতা বা জীবনসঙ্গীর তরফ থেকে যথাযথ সহযোগিতা পাবেন। ধর্মে কর্মে অথবা ধর্মভাবে সফলতা ফিরে আসতে পারে। আপনার পরিবারের সদস্যদের জন্য কিছু সময় বরাদ্দ রাখুন । জন্মপত্রিকা মতে, এই বছর আপনার মনোযোগ তাদের প্রয়োজন। পরবর্তীতে আফসোস করতে হয় এমন কিছু না করে বরং মাথা ঠাণ্ডা রেখে সমস্যার সমাধান করতে হবে, প্রয়োজনে একাধিকবার ভেবে নিতে হবে।
শিক্ষা
উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রটি বাধা সম্পন্ন। সরকারি পরীক্ষার ক্ষেত্রে সফলতার যোগ আছে। তবে তা সম্পূর্ণ বাধামুক্ত নয়। শিক্ষাক্ষেত্রে সফলতা আনতে গেলে বেশ পরিশ্রম করতে হবে। শিক্ষার্থীদের সতর্কও থাকতে হবে। বিশেষ করে তাদের তথ্যপ্রযুক্তিগত অতি উৎসাহিতায় মূল পাঠে বাধার কারণ যেনো না হয়। সচেতন শিক্ষার্থীদের ফলাফল আশানুরূপ লক্ষ্যণীয়।
ব্যবসা ও চাকরি
চন্দ্রের প্রভাব থাকায় মনিহারী দ্রব্যের কর্কট জাতকদের জন্য লাভজনক হবে। এছাড়া তৈল্যজাত দ্রব্য এবং আমদানি রপ্তানি ব্যবসা শুভ। এই বছর কর্কট জাতকদের জন্য আইনজনিত যে কোনো পেশা শুভ বলে রাশিচক্রে প্রতীত হচ্ছে।
কর্মজীবনের জন্মপত্রিকা ২০১৫ আপনার অনুকূলে থাকবে। আপনি সফল এবং নিজেকে নিয়ে সন্তুষ্ট থাকবেন। আপনার প্রচেষ্টা পরিলক্ষিত হবে। উর্ধ্বতন আপনাকে সঠিকভাবে পুরস্কৃত করবে। পুরস্কার প্রধানত আর্থিক সুবিধা, তবে পদোন্নতিও হতে পারে। যদি আপনি আপনার কাজ নিয়ে সন্তুষ্ট না হন, তাহলে তা দেখাতে ভয় পাবেন না। আপনার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা হয় বুঝতে পারবে যে আপনি কোম্পানীর জন্য অপরিহার্য অথবা আপনি একটি ভাল কাজের সুযোগ গ্রহণ করতে হবে। ঝুঁকি নিতে ভয় পাবেন না। পরিবর্তনের অর্থ পরিশেষে ভালোই হবে। ভবিষ্যত নিয়েও ভাবুন। আপনি যদি আপনার সঙ্গীর সাথে পরিবার বা বাচ্চা নেয়ার বিষয়ে চিন্তা করেন, তবে সঞ্চয় করার সঠিক সময় এখনই।
প্রেম ও রোমান্স, বিয়ে ও দাম্পত্য
রাশিচক্রের চতুর্থঘর কর্কট রাশি। কর্কট রাশির পঞ্চমপতি বৃশ্চিক রাশি। দুটোই জল রাশি। কর্কট রাশির সঙ্গে বৃশ্চিক ও মীন রাশির প্রেম ও বিয়ে শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। জল রাশির সঙ্গে অগ্নি রাশি মেষ, সিংহ ও ধনু রাশির সম্পর্ক সবসময় ভালো হয় না। চলতি বছর প্রেম রোমাঞ্চের ক্ষেত্রে আপনাকে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। কর্কটের সপ্তমপতি শনি ষষ্ঠে থাকায় বিয়ের ক্ষেত্রে বোঝাপড়ার মাধ্যমে এগুতে হবে। জুলাইতে কন্যা রাশিতে বৃহস্পতির প্রবেশ ও মকরে দৃষ্টির প্রভাবে প্রেম ও বিয়ের বিষয়ে অগ্রগতির সম্ভাবনা রয়েছে। কর্কট রাশির জাতকরা প্রচণ্ড জেদী ও অভিমানী হয়। তাই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় তাড়াহুড়া করলে ভুল হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।
বছরের প্রথমার্ধে প্রেমের সম্পর্কে ভুলবোঝাবুঝির সম্ভাবনা রয়েছে। তাই সচেতনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।
প্রেমযোগ শুভ। নতুন প্রেম বা প্রেমের প্রস্তাব আসতে পারে। আপনি ভালবাসার একটি নতুন সুযোগ ২০১৫ এর শেষের দিকে পেতে পারেন । কর্কটের আবেগ প্রস্ফুটিত হবে । আপনি প্রচুর রোমান্টিক মুহুর্ত কাটানোর আশা রাখুন , তা আপনি একা হউন অথবা সঙ্গীসহ । তবে দাম্পত্য জীবনে পরিবারের কোনো লোক বা বাইরের কোনো তৃতীয় ব্যক্তির প্রবেশ সমস্যা ডেকে আনতে পারে।


comments (0) / Read More

/ Labels: , , ,

কাউসার আহমেদের চোখে কেমন যাবে 2015 সাল?

কাওসার আহমেদ চৌধুরীকাওসার আহমেদ চৌধুরীভালো-মন্দে পেরিয়ে গেছে আরও একটি বছর। এসেছে ২০১৫। কেমন যাবে আপনার নতুন বছর? ‘নিউমারোলজি’ বা ‘সংখ্যাজ্যোতিষ’ পদ্ধতিতে সেই প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজেছেন কাওসার আহমেদ চৌধুরী
মেষ ২১ মার্চ-২০ এপ্রিল। ভর # ৬
শুভ নববর্ষ ২০১৫! ভুলে যান গত বছরের সব তিক্ততা, সব ব্যর্থতা। এখন শুধু বর্তমানটাকে নিয়ে ভাবুন। আগেই কল্পনা করে নিন, বছরটা আপনার খুব ভালো কাটবে। একটা মনোভাব তৈরি করে সে অনুযায়ী এগোলে ফলটা ভালো হয়, সে জন্য এই কথাগুলো বললাম। বছরের শুরুতে আপনি আছেন পরিবর্তনের মুখে। শুভ পরিবর্তন। যাঁরা নতুন কোনো পেশায় যেতে চান, তাঁদের জন্য এটা একটা ভালো সময়। শিক্ষার্থীরা শিক্ষার লাইন বদলাতে পারেন। চাকরিজীবীরা নতুন চাকরিতে যেতে পারেন। ব্যবসায়ীদের মধ্যেও অনেকে নতুন ব্যবসার দিকে হাত বাড়াবেন। এর সবকিছুই যে বিনা ঝামেলায় হয়ে যাবে, তা আমি বলছি না। কিছু কিছু লোকের কিছু কিছু কাজ ধীরেও হতে পারে। সম্পর্কের ক্ষেত্রে বছরটা নতুন দিন যোগ করবে। অর্থাৎ, আরও সুন্দর হয়ে উঠবে সম্পর্কগুলো। আপনি এতকাল যা যা করতে চেয়েছেন, তার অনেকটাই এ বছর আপনি করতে পারবেন।
বৃষ ২১ এপ্রিল—২১ মে। ভর # ১
বৃষ রাশির জাতক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর খাবার খাওয়ার সময়কে সময়ের অপচয় বলতেন। আমরা কেউই তাঁর এই কথার সঙ্গে বোধ হয় একমত হতে পারব না। তবে কোন চিন্তা থেকে তিনি এটা বলতেন, তা বুঝতে পারি। রবীন্দ্রনাথ ছিলেন সাধারণের ঊর্ধ্বে। কাজেই তাঁর চিন্তাভাবনাও ছিল অসাধারণ। বৃষ জাতক-জাতিকা মুখে যা বলেন, কাজেও তা প্রমাণ করে দেখান। রাশিগতভাবেই তিনি সৌন্দর্যের পূজারি। তাঁর যা কিছু কাজ, সবই ঘিরে থাকে নানা মাত্রার সৌন্দর্যে। ২০১৫ সালে তিনি প্রধানত তাঁর কাজের সৌন্দর্য দিয়ে সবাইকে মুগ্ধতায় ভরে রাখবেন। এরই ফলে তিনি পাবেন অঢেল প্রশংসা ও স্বীকৃতি। কাজটা এমনকি ব্যবসাও হতে পারে। শিক্ষার্থীরা নিজেদের গুণ প্রমাণ করবেন এবং সেই গুণ অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে দেবেন। এভাবে সারা বছর বৃষ অন্যদের প্রভাবিত করবেন। বলা প্রয়োজন, বছরটা বৃষর জন্য আর্থিক সাফল্য বয়ে নিয়ে আসবে। প্রেম-ভালোবাসার ক্ষেত্রে বৃষ এ বছর অনেক কিছুই পাবেন এবং দেবেন। তাঁর দাম্পত্য জীবনও ভালো কাটবে।
মিথুন ২২ মে—২১ জুন। ভর # ৬
২০১৫ সালে এসে, বিশেষ করে সৃজনশীল কাজে মিথুন যথেষ্ট কৃতিত্ব দেখাবেন। দু-একটা নেগেটিভ ঘটনা তাঁর মনকে একটু দমিয়ে দিতে পারে। তবে আমি আগেই বলব, এ রকম ঘটনায় তাঁর দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। সাফল্য, ব্যর্থতা সব বছর, সব রাশিতেই থাকতে পারে। তাহলে কোমর বেঁধে কাজে নামুন। কাজকে ভয় পাবেন না। আপনার শেষ সাফল্য আপনাকেই অবাক করে দেবে। অন্যরাও এতে যথেষ্ট অবাক হবেন। এ বছর মিথুনের রোমান্টিক চিন্তাভাবনা তাঁকে এক নতুন আনন্দে ভরে দেবে। সঙ্গীর ওপর আস্থা হারাবেন না। তিনি আপনার পাশেই আছেন। এ বছর পয়সা উপার্জন করার জন্য মিথুনকে কষ্ট করতে হলেও সেই কষ্ট আশানুরূপ ফল এনে দেবে। পেশাগত জীবনে মিথুনের নৌকা দুললেও উল্টে পড়বে না। তাহলে দেখা যাচ্ছে, বছরটা মিথুনের জন্য শুভই রয়েছে।
কর্কট ২২ জুন—২২ জুলাই। ভর # ২
শুধু ধৈর্যকে অবলম্বন করে কর্কট বছরের সমস্ত সাফল্য তুলে নেবেন। তবে এই সাফল্যের জন্য পুরোটা বছর তাঁকে প্রত্যাশায় থাকতে হবে। সাময়িক ব্যর্থতায় ভেঙে পড়লে চলবে না। এ বছর তিনি কিছু লোকের ভুল বোঝার শিকার হতে পারেন। এই সব ভুল বোঝা তাঁকে আটকে রাখতে পারবে না। অগ্রগতির ক্ষেত্রে এটাই একটা বিরাট ব্যাপার। কেননা, অনেক মানুষ আছেন, একটু ভুল বোঝাতেই যাঁরা ভেঙে চুরমার হয়ে যান। আমার সতর্কবাণী শুনে কর্কট যদি গোড়াতেই সাবধািন হন, তাহলে অনেক বিপর্যয় এড়িয়ে যাওয়া তাঁদের জন্য সহজতর হবে। প্রেম-ভালোবাসায় এ বছর কর্কট জাতক-জাতিকা যেন বেশি দলদারি মনোভাব না দেখান। তাঁদের মনে রাখতে হবে, চাপ দিয়ে ভালোবাসা ধরে রাখা যায় না। ভালোবাসা বেড়ে ওঠে আস্থা ও বিশ্বাসের মধ্যে। কর্কটকে এ বছর নিজের শক্তির ওপর একটু বেশিই নির্ভর করতে হবে।
সিংহ ২৩ জুলাই—২৩ আগস্ট। ভর # ১
বনের রাজা সিংহ। এই সিংহ, আমি ঠিক জানি না, রাশিরও রাজা হতে পারে। অনেক রাশিশাস্ত্রেই এ রকম কথা বলা আছে। যদি তা নাও হয়, তবু বলছি, ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দ সিংহের জন্য একটা উল্লেখযোগ্য বছরই হবে। এ বছর জীবনের নানা ক্ষেত্রে সিংহের অগ্রগতি হবে চমকপ্রদ। দু-চারটে ব্যর্থতা যে আসবে না, তা নয়। তবে সেগুলো তেমন গুরুতর নয়। সিংহের বিজয় আসবে তাঁর কাজ এবং পারিবারিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে। যে ধৈর্য আগে তাঁর মধ্যে দেখা যায়নি, এখন তা দেখা যাবে। তবু সতর্কবাণী করা যায়, সিংহ যেন কোনো অবস্থায়ই অতিমাত্রায় আত্মবিশ্বাসী হয়ে না ওঠেন। সিংহ জাতক-জাতিকা যদি সব রকম পরিস্থিতি শক্ত মনে গ্রহণ করেন, তাহলেই যথেষ্ট। অন্যের ওপর সিংহের প্রভাব এ বছর আরও বাড়বে। সিংহকে বলি, জীবনযাত্রায় সহজ হোন। জীবন আপনাকে সহজেই অনেক সাফল্য দেবে। আপনার গুণের মাধ্যমেই আপনি সব সাফল্য পাবেন।
কন্যা ২৪ আগস্ট—২৩ সেপ্টেম্বর। ভর # ২
২০১৫-তে এসে আমরা এই রাশিফলগুলো সবাইকেই নিবেদন করছি। তবে কন্যা জাতক-জাতিকা আমাদের মনোযোগ পাবেন একটু বেশি। এর মানে কোনো পক্ষপাতিত্ব নয়, সবই যুক্তি ও বিচারের ফল। এ বছর কন্যা হিসেবে আপনি অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখাবেন। এই পারফরম্যান্স ঘরে-বাইরে প্রায় সমান। সাফল্যের ঘরে কী কী থাকবে, তা আপনি নিজেই নিরূপণ করে নিন। সোজা কথায়, এ বছর আপনি যে কাজেই হাত দেবেন, সেই কাজই সোনালি আলোয় ঝলমল করে উঠবে। তার পরও বলি, পৃথিবীতে শতভাগ বলে কিছু নেই। অল্পবিস্তর হতাশা, ব্যর্থতা থাকবেই। সেটাকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া যাবে না। আপনার রাশিফল আমরা অনাবশ্যক দীর্ঘ করতে চাই না। শুধু বলতে চাই, আপনার সাফল্যের আনন্দ আমাদের সবাইকে ছুঁয়ে যাবে। রোমান্সের ক্ষেত্রে এ বছর আপনাকে একটু টেনশনের মুখোমুখি পড়তে হবে। এই টেনশন হচ্ছে যেকোনো রোমান্সেরই উল্টো পিঠ। তাহলে আর তোয়াক্কা কিসের!
তুলা ২৪ সেপ্টেম্বর—২৩ অক্টোবর। ভর # ২
২০১৫-তে এসে আপনার সাফল্যের কারণ অনেকের কাছে ঈর্ষাজনক হয়ে উঠতে পারে। কিন্তু তাতে কী? কেবল ঈর্ষা দিয়ে কাউকে ব্যর্থ করে ফেলা যায় না। খাটো করা যায় না। আপনার সঙ্গে যিনি লড়বেন, তাঁকে অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে। এ বছর আপনি সুসম্পর্ক বজায়ের ক্ষেত্রে এক ধাপ এগিয়ে যাবেন। আপনার পেশাগত সাফল্যও হবে চেয়ে দেখার মতো। আপনার জীবনের ভারসাম্য অন্য অনেককে অনুপ্রাণিত করবে। তবে এ বছর আপনাকে অর্থ ব্যয়ের দিক থেকে অনেকখানি সতর্ক হয়ে চলতে হবে। সঞ্চয়ে মনোযোগী হতে হবে। ব্যক্তিকে আর্থিক সাহায্য না করে দলকে বা সম্প্রদায়কে ওই সাহায্য করাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। এ বছর আপনার কাজের সুফল অন্যরা ভোগ করবে, এখানেই আপনার সার্থকতা। এবং এটা ভেবে আপনি নিজেও সন্তুষ্ট হতে পারবেন। ২০১৫-তে আপনার এক বা একাধিক ভ্রমণ হবে। এই ভ্রমণ থেকে আপনি অনেক বিনোদনের সুযোগ পাবেন। এ বছর নিজের কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকুন, কে কী বলল, সেসব ভেবে লাভ নেই। সবদিক বিবেচনা করলে দেখা যাবে, ২০১৫-তে এসে আপনি সাফল্যে অন্য অনেককে ছাড়িয়ে যাবেন।
বৃশ্চিক ২৪ অক্টোবর—২২ নভেম্বর। ভর # ২
বিজয়ীকে বিনয়ী হতে হয়। বিজয়ের মালা গলায় পরার জন্য তাঁর উঁচু মাথাটা একটুখানি হলেও নিচু করে আনতে হয়। তাহলে দেখা যাচ্ছে, ২০১৫ আপনাকে বিজয়ীর আসনে নিয়ে যাবে। এই সাফল্যে আপনি আবেগপ্রবণ হয়ে পড়বেন না। সাফল্যে-ব্যর্থতায়, সুখ-দুঃখে থাকুন সমান অবিচল। বিবেকের অনুশাসন মেনে চলবেন ঠিকই, তবে অন্যের কথায়ও কান দিন। অন্যদের বক্তব্য শুনে সবশেষে নিজের অভিমত গঠন করুন। এভাবে দেখা যাবে, এ বছর আপনি আপনার পরিকল্পনার সমান উচ্চতায় পৌঁছাতে পেরেছেন। আপনার দর্শন মহৎ, পরিকল্পনাগুলোও বিস্তৃত। এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা কঠিন হলেও আপনার জন্য অসম্ভব কিছু নয়। আপনার দূরকে দেখার দৃষ্টি সব সময় আপনাকে সাহায্য করবে। নীতিগত কারণে কারও সঙ্গে বিরোধ দেখা দিলে সংঘাতে যাবেন না। যা বলার, যা করার, সবই যেন অপ্রকাশ্য থাকে। এই পদ্ধতি প্রয়োগের মাধ্যমে আপনি ক্রমেই সামনে এগিয়ে যাবেন। বছর মধ্যভাগে গড়িয়ে যাওয়ার পর যেসব সাফল্য পাবেন, তা আপনি ধরে রাখতে পারবেন।
ধনু ২৩ নভেম্বর—২১ ডিসেম্বর। ভর # ৯
২০১৫-তে এসে আপনি আপনার এক শুভ চক্রে প্রবেশ করলেন। এখন আপনাকে যদিও আপনার সহন ক্ষমতার প্রয়োগ একই রকম রাখতে হবে; তাহলেও আপনি অনেক শক্তিশালী হয়ে উঠবেন। সমস্যার কথা ভাবছেন? সমস্যা কার নেই। যেদিকেই তাকাবেন, সমস্যার মহাসমুদ্র। এই মহাসমুদ্র কীভাবে আমরা পাড়ি দিতে পারি, সেটাই প্রশ্ন। পাড়ি দিতে তো হবেই, এর কোনো বিকল্প নেই। অর্থাৎ, সাফল্যের কথা ছাড়া আপনি আর কোনো কথা বলতে পারবেন না। ধনু এমন এক ভাগ্য নিয়ে জন্মায়, চিরকাল মানুষ তাঁর কাছে কেবল সাফল্যই আশা করে। ধনুর সামান্যতম ব্যর্থতাও যেন কারও কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। আর ধনুও দেখুন, বারবার মরে গিয়ে বারবার জেগে ওঠে। আপনি যে ধনু, এই বারবার জীবনের কাছে ফিরে আসাই আপনার বৈশিষ্ট৵। তাহলে ধনু, আপনি আপনার কষ্টের কথা তুলবেন না। আমি শোনাব আপনাকে নতুন জীবনের গান। পেছনের দিকে তাকিয়ে দেখুন, জীবনে আপনি পার হয়ে এসেছেন বড় বড় বাধা। তা যদি পেরে থাকেন, তাহলে এবারেও আপনি সমস্যার সমাধানে সফল হবেন। এখন তো কেবল বছরের শুরু, আগে বছরটাকে সামনে গড়াতে দিন। তারপর বিবেচনা করবেন আমার কথা। এ বছর আপনার মানসিক অবস্থা আগের মতো খারাপ থাকলেও সাফল্য দিয়ে আপনি সব জয় করবেন। ভালোবাসা ছড়াতে না পারেন, অন্তত ঘৃণা ও বিদ্বেষ ছড়াবেন না। আর ক্ষমাকে করুন চিরসঙ্গী। ক্ষমাই আপনাকে দেবে প্রশান্তি।
মকর ২২ ডিসেম্বর—২০ জানুয়ারি। ভর # ৩
২০১৫ হবে আপনার জন্য পরিবর্তনের বছর। এ বছর আপনার পেশা থেকে শুরু করে সবকিছুতেই শুভ পরিবর্তন দেখা দেবে। কাজেই বছরের শুরুতেই মুখ গোমড়া করে বসে থাকবেন না। আমি অনেক কষ্টের মধ্যে আপনার জন্য এই রাশিফল লিখছি। আমার কথাটাও একবার ভাবুন। মকর কষ্টসহিষ্ণু, মকর সাহসী। ২০১৫-তে মকর তাঁর জয় ছিনিয়ে নেবেন। কেউ তাঁকে বাধা দিতে পারবে না। বছরের মাঝামাঝি মকরের সাফল্যের শীর্ষবিন্দু। কাজেই বছরের শুরুর কষ্ট মনে রাখবেন না। ২০১৫ আপনাকে শেষ পর্যন্ত দেবে অনেক আনন্দ।
কুম্ভ ২১ জানুয়ারি—১৮ ফেব্রুয়ারি। ভর # ৯
বছরটা খুব সহজে অতিক্রম করবেন বলে ধরে রাখবেন না। সাফল্য পাবেন, তবে ধীরে ধীরে। দু-একবার হুমড়ি খেয়েও পড়তে পারেন। আবার উঠে চলতে শুরু করবেন। এ বছর আপনার অনেক আর্থিক সাফল্য দেখা দেবে। কারও সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়া থেকে সাবধান থাকবেন। কেননা, বিবাদে জড়িয়ে পড়লে আপনার কাজটাই লম্বা হয়ে যাবে। সাফল্য যাবে পিছিয়ে। তবে ২০১৫-তে আপনি এমন দু-একটি সাফল্যের দেখা পাবেন, আগে যা আপনি পাননি।
মীন ১৯ ফেব্রুয়ারি—২০ মার্চ। ভর # ৩
অতীতের করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজের শুভ ফল আপনি এ বছর পাবেন। এ বছরের কিছু কাজের সুফলও দ্রুত আপনার হাতে এসে যাবে। মাথা ঠান্ডা রেখে কাজকর্ম করবেন। মনে রাখবেন, মীন হিসেবে আপনার মধ্যে রয়েছে অসাধারণ কিছু চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। এসব বৈশিষ্ট৵ আপনাকে এ বছর নতুন সাফল্যের দিকে নিয়ে যাবে। আপনি ব্যর্থতা কীভাবে মোকাবিলা করবেন, তা না ভেবে সাফল্য ব্যবস্থাপনার কথা ভাবুন। কাজ করলে সাফল্য মানুষের আসে। তবে কাজে খুঁত থাকলে সাফল্য আসতে দেরি হয়ে যায়। সারা বছর আপনি সঠিক পথেই চলবেন—রাশির বিচার এ কথাই বলছে। যাঁদের জীবনীগ্রন্থ পড়ার আগ্রহ রয়েছে, তাঁরা মীন রাশিতে জন্ম নেওয়া অনেক বড় বড় মানুষের জীবনী জানার সুযোগ খুঁজে পাবেন। এসব পড়ুন, আপনার আস্থা বাড়বে, অনুপ্রেরণাও পাবেন।
আপনি নিজেই আপনার ভাগ্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন শতকরা ৯০ থেকে ৯৬ ভাগ। বাকিটা আমরা ফেট বা নিয়তি বলতে পারি। ভাগ্য অনেক সময় অনির্দিষ্ট কারণে আপনা থেকেও গতিপথ বদলাতে পারে। এখানে রাশিচক্রে আমি ‘নিউমারলজি’ বা ‘সংখ্যা-জ্যোতিষ’ পদ্ধতি প্রয়োগ করেছি—কাওসার আহমেদ চৌধুরী

comments (0) / Read More

/ Labels: ,

রাশিফলে জেনে নিন কেমন যাবে আপনার ২০১৫ সালটি?

রাশিফলে জেনে নিন কেমন হতে যাচ্ছে আপনার ২০১৫ সালটি?
পত্রিকার পাতা খুলে অনেকেই আমরা চোখ বুলিয়ে নিই রাশিফলে। যদিও রাশিফলের নেই কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি, কিন্তু তবুও অনেকেই বলেন তাঁর জীবনের সাথে মিলে যাচ্ছে অনেকটাই। কেমন যাবে আপনার আজকের দিনটি? কোন রাশিকে দেয়া হয়েছে কী সতর্কতা? আসুন, জেনে নিই আজকের রাশিফল হতে। বিশ্বাস থাকুক আর নাই থাকুক, একটু সতর্ক থাকতে তো দোষ নেই!
মেষ (মার্চ ২১ – এপ্রিল ১৯):
এই হার না মানা চরিত্র নিয়ে জন্মগ্রহকারীগণ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মঙ্গলগ্রহ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। রাশিফল ২০১৫ মেষ সদস্যদের জন্য অনেক পরিবর্তন নিয়ে আসে। অবশেষে, আপনার উচ্চাকাঙ্ক্ষার সর্বোত্তম ব্যবহার এবং কোনো বিষয়ে আপনার চমকপ্রদ হওয়ার ক্ষমতার ব্যবহার করতে পারবেন। গত বছর আপনি ধৈর্য সহকারে অপেক্ষা করেছেন এবং এই বছর আপনার পরিশ্রমের ফল পাকবে, তা সম্পর্ক এবং পেশাগত জীবন উভয় ক্ষেত্রেই হবে। উপরন্তু, আপনি আপনার প্রাকৃতিক বিচার ক্ষমতার পূর্ণ ব্যবহার করবেন।

এই বছরের শুরুতে আপনি ইতিবাচক শক্তি বোধ করবেন। রাশিফল এই অবাধ্যতার বিষয়টি প্রকাশ করে, তাই মেষের লক্ষণের জন্য আদর্শ, চাকুরীর ক্ষেত্রে লক্ষ্য অর্জনে আপনাকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। যদিও আপনি একজন মহান নেতা এবং সংগঠক হতে পারবেন, তবে আপনাকে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং আপনার সফলতায় খুব বেশি “আচ্ছন্ন” হবেন না এবং বস হিসেবে বিপদে পরবেন না।

সামনের বসন্তে আপনার প্রেম আর প্রকৃতি একসঙ্গে ফুটে উঠবে, যদি আপনি কোনো সম্পর্কে জড়িয়ে যান। তারকারাজিও একটির দিকে মুখ করে আছে। বছরের এই মোহময় সময়ে, আপনি এবং বিপরীত লিঙ্গের মধ্যে একটি শক্তিশালী স্ফুলিঙ্গ হবে। কিন্তু আপনার পরিবার এবং বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটাতেও ভুলবেন না।

যদি আপনি সৌভাগ্যবান হওয়ার বিষয়টি চালিয়ে যেতে চান, তবে ২০১৫ সালের দ্বিতীয় অংশে আপনাকে অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে। ভালো হবে যদি এই সিদ্ধান্ত নিতে আপনি দুইবার ভাবেন। উপদেশ নিতে আপনার বন্ধু বা যোগ্যতাসম্পন্ন পরামর্শদাতার সাথে যোগাযোগ করতে স্বচ্ছন্দ বোধ করুন। অবশ্যই জিনিসের উপর খুব বেশি জোর করবেন না, বিশেষ করে যখন আপনি কোনো ব্যবসায়িক চুক্তি স্বাক্ষর করতে যাচ্ছেন। রাশিফল অনুযায়ী, মেষের জন্য কাজ অসমাপ্ত রাখার মতো সঠিক সময় এটি না। এটি বাতিল হয়ে যাওয়ার একটি বিপদ রয়েছে।

শরৎ আসার সময় আপনাকে পারস্পরিক সম্পর্কের দিকে মনোযোগী হতে হবে। একগুঁয়ে হবেন না। আপোষ করার মাধ্যমে আপনি সহজেই একটি সমস্যা এড়িয়ে যেতে পারেন। আপনার প্রিয় লক্তির প্রতি মনোযোগী হোন। একটি ছোট উপহার নিশ্চয়ই সবাইকে খুশি করবে। অক্টোবরে তুষারপাতকে আপনার স্বাস্থ্যের সাথে মিলিয়ে ফেলবেন না এবং আপনাকে রক্ষা করুন। এটি খেলার জন্য সবচেয়ে ভাল সময়। আপনার শরীর এবং প্রতিরোধক্ষমতা উভয়ই জোরদার হবে।

বছরের শেষে প্রধানত আপনার কর্মজীবনের জন্য। আক্ষরিক অর্থেই আপনি সফল হবেন, আপনার ঊর্ধ্বতনদের জন্য তা খেয়াল না করতে দিন। আপনি সঠিক পুরস্কার পাওয়ার জন্য বিবেচিত হতে পারেন। একে ধন্যবাদ এই কারণে যে, এটি আপনার কাছের লোককে খুশি করতে এবং তাঁদের স্বপ্নকে পূরণ করতে পারবে। বড়দিন আপনার জন্য অত্যন্ত শুভ হবে। তাই মেষের জন্য ২০১৫-এর মতো এত সফল একটি বছরকে বিদায় বলা কঠিন হবে।

বৃষ (এপ্রিল ২০ – মে ২০):
রাশিফল ২০১৫ বৃষরাশির জন্য সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করছে। এই লক্ষণ নিয়ে জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তি তাঁদের বাস্তবতা এবং দায়িত্বের জন্য বিখ্যাত। চরিত্রের এই বৈশিষ্ট্য আপনার কর্মজীবনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তাই এই বছর এর দিকে অনেক বেশি মনোযোগ দিতে চেষ্টা করুন, কিন্তু একটি শান্ত পথের পর শুক্র এ বছর আপনাকে পরিচালিত করবে।

বছরের শুরু থেকে আপনি সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভাল করবেন। আপনি একটি শান্তিপূর্ণ উপায়ে পুরানো এবং ভুলে যাওয়া আরও অতীতের বিবাদ ভুলে যেতে সমর্থ হবেন। উপরন্তু, আপনি অন্যদের বিবাদ মীমাংসা করতে সহায়তা করতে পারবেন, যার জন্য আপনি স্বীকৃতি অর্জন করবেন। অন্য দিকে, এই সময় নতুন সম্পর্ক তৈরি আপনার জন্য সুবিধাজনক নয়। পরবর্তীতে এর জন্য অপ্রীতিকর বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হবে।

বসন্তের সাথে সাথে বৃষরাশির অধ্যবসায় প্রস্ফুটিত হবে। আপনার সহকর্মীর ধারণা সম্বন্ধে আহ্লাদিত হতে এবং তাঁকে সহায়তা করতে ভয় পাবেন না। যদি আপনি কঠোর পরিশ্রম করেন, তবে আপনি অসাধারণ লক্ষ্য অর্জন করতে পারেন এবং আপনার দীর্ঘ আকাঙ্ক্ষিত একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাকআপ তৈরি করতে পারবেন। সাফল্য এবং খ্যাতির এই সময়ের মধ্যে কোনো শত্রু তৈরি না হওয়ার বিষয়ে সাবধান হবেন। মানুষ কখনও কখনও খুবই ঈর্ষান্বিত হতে পারে।

বছরের মাঝামাঝি কোনো সঙ্কট আসতে পারে। আশ্চর্যের কিছু নেই। কাজের জন্য আপনি ক্লান্ত এবং আপনার প্রিয়জন মাঝে মাজে আপনার মেজাজ পরিবর্তনের বিষয়টি বুঝতে পারেন না। রাশিফল আপনাকে উপদেশ প্রদান করে যে, আপনি শান্তিতে কথা বলুন, কিছু নিয়মকানুন নিয়ে আসুন বা একটি ছোট ছাড় দিন এবং আপনার সম্পর্কে সম্প্রীতি বজায় রাখার চেষ্টা করুন।

গ্রীষ্মে আপনার একটি অবিস্মরণীয় অবকাশের অভিজ্ঞতা হবে, যার পর আপনার ভালোবাসা সম্পর্কে আর কিছু চিন্তা করতে হবে না। সবকিছু ঠিক থাকবে। সে কারণে, বৃষরাশি বিপুল উদ্দীপনা নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবেন। রাশিফল অনুযায়ী, বিশেষ করে আগস্টে, যখন সবাই ছুটির মৌসুম উপভোগ করবে, তখন আপনি আপনার সময় কার্যকরভাবে ব্যবহার করতে পারবেন। হতে পারে, এই সময় আপনার জন্য পদন্নোতি অপেক্ষা করছে।

শরৎকাল আপনার জন্য একটি অত্যন্ত স্থিতিশীল সময় হবে। গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য এটিই হবে আদর্শ সময়। যদি আপনার দীর্ঘদিনের লালিত কোনো স্বপ্ন থাকে, তবে এটা বাস্তবায়নের জন্য এটিই সঠিক সময়। নির্দ্বিধায় বিলাসিতা ও আরাম করুন।

২০১৫-এর শেষে, আপনার শক্তি কিছুটা কমে আসবে। মনে হবে যে, আপনি ঘুমিয়ে গেছেন। আপনি আপনার কর্মজীবন ক্ষতিগ্রস্থ করা শুরু করবেন, কিন্তু এই ব্যস্ত বছরের পর এটার জন্য আপনার অধিকার আছে।

মিথুন (২১ মে থেকে ২০ জুন):
এই রাশিচক্রে জন্মগ্রহণকারী মানুষরা কখনও কখনও তাদের ভিতরে দুটি ভিন্ন ব্যক্তিত্ব লুকিয়ে রাখে । তারা বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন এবং অন্যান্য ব্যক্তিদের পরীক্ষা করতে পছন্দ করেন আর তাই তাদের সামাজিক জীবন খুব সক্রিয় । জন্মপত্রিকা ২০১৫ অনুসারে মিথুন তাদের বিপরীত লিঙ্গের সঙ্গে অনেক উপভোগ্য মুহুর্ত কাটাবে । আপনার গ্রহ , বুধ , প্রধানত সম্পর্কের ক্ষেত্রে এই বছর আপনাকে প্রভাবিত করবে। ২০১৪-এর মত নয় , আপনি এই বছর পরিবর্তন , নতুন তথ্য এবং ব্যক্তিগত উন্নয়ন সাধন সানন্দে আশা করতে পারেন।

বছরের শুরু থেকে মিথুন রাশির জাতক/জাতিকারা সম্পর্কে ইতিবাচক শক্তি উপভোগ করতে পারেন । স্বতঃস্ফূর্ত কল্পনা শক্তির ব্যবহারে আপনি আপনার সঙ্গীকে একটি ক্ষুদ্র বিস্ময় দ্বারা বিমোহিত করতে পারেন । সঙ্গীহীন ব্যাক্তিরাও ভাগ্যবান হবেন । এই সময়কালে আপনি সম্ভাব্য সঙ্গীদের নিকট খুব আকর্ষণীয় প্রতীয়মান হবেন । বসন্তে আপনি আবেগতারিত হয়ে পরবেন না। বাস্তববাদী হউন । ২০১৫ সালের দ্বিতীয়ার্ধে জন্মপত্রিকা অনুযায়ী চিন্তার নিদর্শন রয়েছে । কিছু সময় আপনি একাকী অতিবাহিত করুন ,আপনার আরো স্থিতিশীলতা আসবে এবং আপনার মাথা হতে সমস্ত দুশ্চিন্তা নিমেষে দূর হয়ে যাবে । এই বছরের শেষ ভাগে আপনাদের সুযোগ রয়েছে যারা তখনো সঙ্গী খুঁজে পান নি । নতুন যোগাযোগ স্থাপন করাটা আপনার জন্য খুবই সহজ হবে । যারা কোন সম্পর্কে জড়িয়ে আছেন তাদের একটু বেসুরো ঠেকতে পারে , তাই ছোটখাটো বিষয়গুলোকে আপনার ফুরফুরে মেজাজের বিঘ্ন ঘটাতে না দেয়াই শ্রেয়।

আপনি মূলত গ্রীষ্মে আপনার কর্মজীবনের উন্নতি উপভোগ করবেন । শীতকালে আপনি আপনার কাজে খুব একটা ভাল ছিলেন না । আপনার প্রেরণা ছিল না , কিন্তু এই সবই পরিবর্তন হবে । গ্রীষ্মে আপনি সৃজনশীল হবেন এবং কর্মক্ষেত্রে উজ্জ্বল সাফল্য পাবেন । আপনি আপনার উর্ধ্বতন কর্মকর্তার মনোযোগ ও স্বীকৃতি অর্জন করবেন , কিন্তু আপনি পরশ্রীকাতর ব্যক্তিরও সাক্ষাৎ পাবেন . তাদের খুব ঘনিষ্ঠ হতে দিবেন না।

২০১৫ সালে কোনভাবেই আপনার পরিবারকে উপেক্ষা করবেন না । এই বছর আপনি পরিশেষে ঝামেলা মিটিয়ে ফেলার প্রয়াশ পাবেন । জন্মপত্রিকা অনুমান করে যে আপনার নিকটজনের মধ্যে আবার সৌহার্দ্য ফিরে আসবে ।

বিশেষ করে বছরের শেষ দিকে মিথুন রাশির জাতাক/জাতিকাদের স্বাস্থ্যের প্রতি সতর্কতা অবলম্বন করা আবশ্যক। বুধ গ্রহ আপনার উপর তেমন একটি ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে না এবং দুর্ঘটনা বা আঘাত থেকে একটা বিপদ ঘটতে পারে । ভাল শারীরিক অবস্থা বজায় রাখার চেষ্টা করুন ; আপনার নিজের প্রতি খুব সতর্ক থাকুন।

কর্কট (২১ জুন থেকে ২০ জুলাই):
গত বছর থেকে ভিন্ন এই বছর এই রাশিচক্রের মানুষ সম্পর্কের ক্ষেত্রে ইতিবাচক শক্তির উপর নির্ভর করতে পারবে । জন্মপত্রিকা ২০১৫ অনুমান করে কর্কটের আকর্ষণীয় পরিবর্তন । আবেগ-তাড়িত এবং ধারণাগ্রস্ত কর্কট রাশির জাতাক/জাতিকাদের সাধারণ খেয়ালিপনায় অবাক চাঁদের প্রভাবের অধীনে আসা উচিৎ হবে না ।পরবর্তীতে আফসোস করতে হয় এমন কিছু না করে বরং মাথা ঠাণ্ডা রেখে সমস্যার সমাধান করতে হবে , প্রয়োজনে একাধিকবার ভেবে নিতে হবে।

জ্যোতির্বিদ্যা অনুযায়ী জন্মপত্রিকা আপনার জন্য ইতিমধ্যে বছরের শুরুটা কঠিন ছিল । বিপরীত লিঙ্গের আকর্ষণীয় কারো সাক্ষাৎ পাবার পর আপনার জীবন ঝলমলিয়ে উঠবে । কিন্তু আপনার উচিত যুক্তিসহকারে চিন্তা করা । দেখে যা মনে হয় এই ব্যক্তি আসলে এক নাও হতে পারে । আপনি হয়ত ভাবতে পারেন যে এই ব্যক্তিই আপনার জন্য শ্রেয় কারণ প্রথমিক মোহে আপনি খেয়াল করেন না যে এটা সম্পর্কের উপাদান না। এই অপ্রত্যাশিত অভিজ্ঞতার পর আপনি নিজেকে গুটিয়ে নিন এবং মেডিটেশন এর মধ্যে খুঁজে নিন নিজেকে । পরে আপনি অনেক কিছু বুঝতে পারবেন যা আপনার ব্যক্তিত্বের বিকাশে সাহায্য করবে, তাই এই সময়টা লাভজনক হিসেবেই প্রমাণিত হবে । আপনি ভালবাসার একটি নতুন সুযোগ ২০১৫ এর শেষের দিকে পেতে পারেন । কর্কটের আবেগ প্রস্ফুটিত হবে । আপনি প্রচুর রোমান্টিক মুহুর্ত কাটানোর আশা রাখুন , তা আপনি একা হউন অথবা সঙ্গীসহ ।

বিশেষত শীতকালে যখন সম্পর্কে টানাপড়েন চলে, তখন কর্মজীবনের প্রতি মনোযোগ দিন । অন্তত আপনি অন্য চিন্তায় আসবেন। বছরের দ্বিতীয় চতুর্থাংশে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত বাতিল এবং নির্দিষ্ট সময়সীমা অতিক্রম করবেন না। পরবর্তীতে এতে বিপর্যয় ঘটাতে পারে । শিশু সুলভ আচরণ করবেন না। যাদের সম্পূর্ণরূপে বিশ্বাস করতে পারেন না তাদের সঙ্গে আপনার অপরিহার্য তথ্য শেয়ার করা উচিত নয় । ২০১৫ র মাঝামাঝি আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ আসতে পারে । আপনার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা অবশেষে আপনার প্রচেষ্টা লক্ষ্য করবেন এবং আপনাকে পুরস্কৃত করা হবে । এছাড়াও আর্থিক সুবিধা আপনার জন্য অপেক্ষমান, তাই গ্রীষ্মে আপনি প্রাপ্য একটা ভাল ছুটি কাটানোর সামর্থ্য লাভ করবেন। আপনার কাজের চাপ শরৎমাস পর্যন্ত বহাল থাকতে পারে ।

আপনার পরিবারের সদস্যদের জন্য কিছু সময় বরাদ্দ রাখুন । জন্মপত্রিকা মতে, এই বছর আপনার মনোযোগ তাদের প্রয়োজন । আপনার স্বাস্থ্যকেও উপেক্ষা করবেন না । বিশেষ করে মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকুন, কঠিন কাজ মধ্যে বিনোদনের জন্য কিছু মুহূর্ত বের করুন ।

সিংহ (জুলাই২৩- আগস্ট২২):

এই রাশি সূর্যের সাথে সংযুক্ত। এটা সিংহরাশির মানুষকে অনেক সৃজনশীল শক্তি দিয়ে থাকে যা নেতৃত্বের সাথে সম্পর্কযুক্ত। তাঁরা সবসময় পরিকল্পনা প্রণয়ন করেন যা খুবই ভালো, কিন্তু কখনও কখনও অসাধ্য। সিংহ রাশির জাতক-জাতিকারা উদার এবং তাঁরা আকাশ ছুঁতে চায়। তাঁরা ভালো সামাজিক অবস্থার জন্য অপেক্ষা করে যা তাঁদের ভাগ্যের প্রতি অনুরাগ প্রকাশ করে। তাঁরা অর্থ ভালোবাসে কেননা তা তাঁদেরকে স্বাধীনতা দেয়। তাঁরা বন্ধু হিসেবে ভালো কিন্তু সামনাসামনি সমালোচনা করে থাকে।

তাঁদের আত্মবিশ্বাস ও উচ্চাভিলাষের কারনে তাঁরা মনোযোগের কেন্দ্রে থাকতে চায়। সিংহ রাশির মানুষেরা এমন লোকদের দল খোঁজে যেখানে সে প্রশংশিত হবে। যদি তাঁরা সফল না হয়, তবে তাঁরা দল ত্যাগ করে এবং নতুন দল বা গোষ্ঠী খুজতে থাকে। তাঁদের লক্ষ্য, অধ্যবসায় ও দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতার কারনে তাঁরা জীবনে সফল। অধিকাংশ সময় তাঁরা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী এবং তাঁরা পারিপার্শ্বিক প্রভাব থেকে মুক্ত।

তাঁদের দোষের মধ্যে বিশেষ করে রয়েছে স্বেচ্ছাচারিতা যা অন্যদেরকে কষ্ট দেয়। মাঝেমধ্যে, তাঁরা চরম মহত্ত্ব বা অন্যদের অধস্তন হতে অক্ষমতার কারনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

কর্মজীবনের নিরিখে. সিংহরাশির লোক বেশিরভাগই কোনো উদ্যোগের নেতা অথবা সফল ব্যাবসায়ী যা তাঁদের লক্ষ্য ও অধ্যবসায়ের ফল। সিংহরাশির লোক খুব কমই নিচু শ্রেণীর কাজ করে কারন অন্য কেউ তাঁদের নেতৃত্ব দিক এটা তাঁরা ভালোভাবে নিতে পারে না।

তাঁদের সকল ভাল এবং খারাপ গুণগুলো সম্পর্কের ক্ষেত্রে তাঁদের আচরণকে প্রভাবিত করে, কিন্তু সিংহরাশির লোকরা তাঁদেরকে দমিয়ে রাখতে চায় না। পাশাপাশি, তাঁদের জীবনের আমোদপ্রিয় ধরন অস্থিরতা এমনকি অসততাও সৃষ্টি করতে পারে।

কন্যা (আগস্ট ২৩ – সেপ্টেম্বর ২২):

এই রাশিচক্রে জন্মানো সদবুদ্ধিসম্পন্ন ব্যাক্তিগণ মঙ্গলের প্রভাবে থাকবেন, যা তাদের শাসন করবে, জটিল তথাপি বাস্তবসম্মত। প্রধানত আপনি একজন সত্যিকারের মানুষ এবং আপনি অন্যের জন্যে সবকিছুই করতে পারেন। গতবছর ভালো ছিল না, কিন্তু এবছর আপনি অবশেষে কাঙ্কখিত পুরস্কার পাবেন। ২০১৫ রাশিফল তুলারাশির জাতকদের বছরের দ্বিতীয়ার্ধে আশাবাদী থাকাতে বলে, যখন প্রাথমিক সাফল্যের পর পতন আসতে পারে।

বছরের শুরুতে আপনি সবকিছুতেই ভালো করবেন। মানুষ ও কর্মজীবনের প্রতি মনোযোগ দিন। কিন্তু তাড়াহুড়ো করবেন না। শীতের সময় বরফপূর্ণ রাস্তায় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আপনার স্বাস্থ্য নিয়ে ছেলেখেলা করবেন না। গতি নিয়ন্ত্রণে রাখুন। বসন্ত শান্তিপূর্ণ সময়ের হবে। আপনার চিন্তা নমনীয় করতে এটিকে ব্যবহার করুন, পরে তা সুবিধাজনক পদক্ষেপ হিসেবে প্রমাণিত হবে। ২০১৫ এর প্রায় অর্ধেক সমস্যায় জর্জরিত হবে। এগুলো জমিয়ে রাখবেন না, পরে তা বিপর্যয় দেকে আনতে পারে। শরৎ এবং শীতকালে ঘনিষ্ঠ ব্যাক্তির সাথে সাবধানতা অবলম্বন করে চলবেন। কেউ আপনার সুখ নষ্ট করতে সচেষ্ট হতে পারে।

শীতকাল আপনার কর্মজীবনের জন্য তৈরি। কন্যারাশির জাতকরা বিশেষত তাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সম্মান ও আস্থা অর্জনের পরে কর্মক্ষেত্রে খুব সফল হবেন। তিনি আপনাকে গুরুত্বপূর্ণ কাজ দেবেন এবং যদি আপনি তা করতে পারেন, পুরস্কার নিশ্চিত। ২০১৫ এর দ্বিতীয় চতুর্থাংশে অসমাপ্ত প্রকল্পে আত্মনিয়োগ করা উচিত. অতীতের কথা চিন্তা করুন এবং আপনার ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহন করুন। গ্রীষ্মে কর্মক্ষেত্রে সমস্যা মুলতবি রাখবেন না, অনেকগুলি জমা হয়ে গেলে আপনি সেগুলোর নিষ্পত্তি করতে পারবেন না। কেউ আপনার কর্মজীবনকে ব্যর্থ করায় লিপ্ত হতে পারে, শুধু সেব্যক্তির সাথেই বোঝাপড়া করুন।

পরিবার এবং বন্ধুর প্রতি মনোযোগী হন বিশেষ করে ফেব্রুয়ারি মাসে। তাদের এই মুহূর্তে আপনার সমর্থন প্রয়োজন। জন্মপত্রিকা গ্রীষ্মে আপনার জীবনে সম্পর্ক গড়ে ওঠার সুযোগ আসতে পারে বলে জানায়। কর্মক্ষেত্রে সমস্যা সমাধানের পরে সমাজের যোগ দিতে পিছপা হবেন না। নতুন মানুষের সাথে পরিচিত হন এবং একটু মজা করুন। যারা ইতোমধ্যে সৌভাগ্য খুঁজে পেয়েছে, তাদের সঙ্গীকে উপেক্ষা করা উচিত হবে না বিশেষ করে বছরের শেষ নাগাদ।

তুলা (সেপ্টেম্বর ২৩ – অক্টোবর ২২):
তুলারাশির জাতক-জাতিকারা শুক্র গ্রহের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত যা তাঁদের দৃঢ়চেতা মানসিকতার কারন। তাঁরা বুদ্ধিজীবী মানুষ যারা অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চায়। তাঁরা জীবনটা উপভোগ করে এবং তাঁরা সুন্দর জিনিস দেখে উৎফুল্ল হয়ে পড়ে। তাঁদের শৈল্পিক মেধা রয়েছে এবং তাঁরা সাধারনত শিল্পকলা পছন্দ করে। তাঁরা রত্ন, মার্জিত কাপড়, সব ধরনের আমোদ-ফুর্তি, গান-বাজনা, নৃত্যকলা, এবং অর্থ ভালোবাসে যা তাঁদের চাওয়া পাওয়া পূরণ করে। সততা ও দায়িত্বশীলতা তাঁদের বৈশিষ্ট্য। তাঁরা সাধারনত, সহানুভূতিশীল, বিশ্বপ্রেমিক ও বন্ধুভাবাপন্ন। তাঁদের কিছু সপ্ন আছে এবং তাঁরা সেই অনুযায়ী বেঁচে থাকতে চায়। তুলারাশির জাতক-জাতিকারা উচ্চাভিলাষী, এবং কিছুটা অহংকারী যাতে সহজেই মানুষ বিক্ষুব্দ হতে পারে।

তুলারাশির দোষের মধ্যে রয়েছে তাঁদের অতিরিক্ত সংবেদনশীলতা, ধৈর্যহীনতা, এবং নিশ্চিন্ত স্বভাব যা অর্থের অপচয় ঘটাতে পারে। তাঁরা সবসময় যুক্তির চাইতে আবেগকে বেশী গুরুত্ব দেয়।

সম্পর্কের ক্ষেত্রে, তাঁদের উদারতার কারনে তাঁরা খুব সহজে নতুন বন্ধু পেয়ে যায়। তাঁরা ঝামেলা এড়াতে পারে না তাই তাঁদের এমন সঙ্গী প্রয়োজন যে তাঁর পাশে থাকবে। বিবাহ ও সমাজ তাঁদের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ। কিন্তু, মাঝেমধ্যে, তাঁর সঙ্গীর সাথে সম্পর্কের ক্ষেত্রে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

তুলারাশির লোকেরা সব ধরনের কাজের জন্য ভালো যেখানে তাঁরা মানুষের সাথে কাজ করতে পারবে। তাই তাঁদের জন্য আদর্শ পেশা হবে শিল্পকলা বা ব্যাবসা। কর্মজীবনে ব্যর্থতার কারন হতে পারে উদাসীনতা এবং অন্যের অধীনে কাজ করার প্রবণতা।

বৃশ্চিক (অক্টোবর২৩ – নভেম্বর২১):
এই রাশিচক্রে জন্মগ্রহণকারীরা প্রথম প্রথম নিষ্ক্রিয় লাজুক মনে হলেও তাদের ভেতরে অনেক শক্তি আছে। তাদের দৃঢ়চিত্তের ফলে তারা খুব একনিষ্ঠ। তারা সহজে প্রভাবিত হন না। সঠিক মুহূর্তে তারা সত্যিই সাহসী এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। ২০১৫ এর জন্মপত্রিকা অনুযায়ী বৃশ্চিকরাশির জন্য এবছর ২০১৪ এর তুলনায় খুবই ইতিবাচক হবে। প্লুটো গ্রহের প্রভাবে আপনি সবকিছুতেই ভাল করবেন।

বছরের শুরুতে বৃশ্চিকরাশির কর্মজীবনের সতর্ক হওয়া উচিত। আপনার শত্রু আপনার ভাগ্য চুরির জন্য চেষ্টা করতে পারে। হতে পারে আপনার সহকর্মী আপনার প্রকল্প চুরি করার চেষ্টা করবে এবং আপনার ধারনা নিজের বলে চালিয়ে দিতে চাইবে। আপনার চারপাশের বন্ধু থেকেও সতর্ক থাকুন। তাদের কেউ হয়তো যতটা মনে হচ্ছে, ততোটা সৎ নয়। জন্মপত্রিকা অনুযায়ী বসন্তে কর্মক্ষেত্রের সমস্যা দূর হবে। কঠোর পরিশ্রমের দ্বারা ব্যর্থতাকে জয় করে এবং সেগুলো ঠিক করুন। কেউ নিশ্চয়ই তা লক্ষ্য এবং সঠিকভাবে আপনাকে পুরস্কৃত করা হবে। হয়তো আর্থিক পুরস্কার আপনার জন্য অপেক্ষা করছে। এপ্রিলে এলার্জি থেকে সতর্ক থাকুন, ছোটখাট স্বাস্থ্য সমস্যা অবমূল্যায়ন করবেন না। বছরের অর্ধেকে পরিবর্তন আসবে, বিশেষত সম্পর্কের ক্ষেত্রে। প্লুটো খুবই ইতিবাচকভাবে বৃশ্চিকরাশিকে প্রভাবিত করে। সম্পর্কে বড় পদক্ষেপ নেয়ার এটাই সঠিক সময়, কিন্তু আপনাকে একটি দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে হবে, পরে সঠিক সময় নাও থাকতে পারে। জন্মপত্রিকার পক্ষ থেকে গ্রীষ্মকালেও নিঃসঙ্গদের প্রতি শুভেচ্ছা রইল। এসময় খুব আনন্দের, কিন্তু স্বার্থপর না হয়ে পরিবারের জন্য কিছু সময় বের করতে ভুলবেন না। আপনাকে বুঝতে হবে যে এরাই আপনার ভাল বা খারাপ সবসময়ে আপনার পাশে থাকে, তাই তার প্রতিদান দিন। ২০১৫ সালের শেষ নাগাদ আপনার কাজের চাপ বৃদ্ধি পাবে। হয়তো আপনার জন্য পদন্নোতি অপেক্ষা করছে। আপনি প্রেমেও ভরপুর থাকবেন। সঙ্গীর সাথে আপনার খুব ছন্দময় সম্পর্ক থাকবে এবং যাদের ভাগ্যে এখনও প্রেম আসে নি, তারা রোমান্টিক মুহুর্ত উপভোগ করবেন এবং একটি নতুন পরিচিতের সাথে প্রেমে করবেন। একটা নতুন শখের জন্য বছরের শেষটা শুভ, কোন মজার খেলা বা ভাষা কোর্সে যোগ দিন।

ধনু (নভেম্বর ২২- ডিসেম্বর ২১):
রাশিফল ২০১৫ ধনুরাশিকে প্রতিশ্রুতি করে যে প্রাথমিক সমস্যা সমাধানের পরে উন্নতি আসবে এবং আপনি সবকিছুতে ভালো করবেন। এই রাশিচক্রে জন্মগ্রহণকারী তাদের শাসক বৃহস্পতির প্রভাবে সহজাতভাবে আশাবাদী ও দুঃসাহসিক হয়ে থাকে। এবছর আপনি আত্মবিশ্বাসের সম্পূর্ণ ব্যাবহার করতে পারবেন এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম হবেন। দুর্ভাগ্যবশত গত বছর এটাতে আপনি খুব একটা ভাল ছিলেন না।

ধনুরাশির জন্য জন্মপত্রিকা অনুযায়ী বছরের শুরুতে কর্মক্ষেত্রে বা সম্পর্কে কোনটাতেই সফল হবেন না। এসময় বরং পরিবারের প্রতি মন দিন। তারা আপনাকে উৎসাহিত করতে পারেন এবং আপনি অন্য চিন্তায় মগ্ন হতে পারবেন। বছরের দ্বিতীয় চতুর্থাংশে আপনি পরিশেষে আপনার কর্মজীবনের সমস্যার সমাধার করবেন, কিন্তু এখনও আপনাকে সম্পর্কের উন্নতির জন্য চেষ্টা করতে হবে। ২০১৫-র মাঝের দিকে দিয়ে পরিবর্তন আসবে। ইতিবাচক শক্তি ফিরে আসবে। গরমের ছুটিতে আপনি প্রচুর প্রানশক্তি এবং আত্মবিশ্বাস পাবেন যা এবছরের শেষ পর্যন্ত স্থায়ী হবে

বসন্ত পর্যন্ত আপনার পেশা নির্জীব থাকবে। আপনি কর্মক্ষেত্রে ওভারটাইম দিলেও কোন কাজে আসবে না। শুধু হাল ছেড়ে দেবেন না। এপ্রিলে সন্ধিক্ষণ আসতে পারে। আপনি আপনার দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা ব্যবহার করবেন এবং কর্মক্ষেত্রের সঙ্গিন পরিস্থিতিতে অভাবনীয় সমাধান পাবেন। আপনি স্বীকৃতি এবং সুবিধা অর্জন করবেন। বছরের অর্ধেক থেকে নিজের প্রকল্প পরিচালনার মাধ্যমে যোগ্য সংগঠক হিসেবে প্রমাণিত হবেন। আপনি আপনার সহকর্মীদের থেকে সাহায্য আশা করতে পারেন। বছরের শেষে, কর্মভাগ্যকে অবহেলা করবেন না এবং হিংসুকদের উপেক্ষা করুন।

সম্পর্কে একটু বেশিই সমস্যা হবে। আপনার সঙ্গীর সাথে বিবাদের সময় পুরোনো বিরোধ মেটানোর চেষ্টা করবেন না। ২০১৫ এর যাদুকরী গ্রীষ্মে পরিবর্তন আসবে এবং সম্পর্কে ছন্দ ফিরে আসবে। এমনকি কঠিন সময় অতিক্রমের পরে আপনার সম্পর্ক জোরদার হবে। রাশিপঞ্জিকা অনুসারে এককীরা আত্মবিশ্বাসের আভা ছড়াবে এবং এজন্য তারা প্রথম দর্শনে সম্ভাব্য সঙ্গীদের আকর্ষণ করবেন। গ্রীষ্মে প্রেমে দুঃসাহসিকতা উপভোগ করুন। এমনকি বছরের শেষও আপনার সেক্স আপীল শীর্ষে থাকবে। আপনার যাদুকরী আকর্ষণ দ্বারা বিপরীত সঙ্গীকে সম্পূর্ণরূপে মোহিত করতে পারেন।

মকর(২১ ডিসেম্বর থেকে ২০ জানুয়ারী):
এই রাশিচক্রের জাতক প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাসী এবং উচ্চাভিলাষী হওয়ায় রাশিফল প্রচুর সাফল্যের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। গত বছর থেকে আলাদাভাবে এই বছর আপনি পরিশেষে আপনার ইচ্ছার স্বীকৃতি পেতে পারেন আর কি। শনি আপনাকে বিশেষত গ্রীষ্মকালে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করবে এবং আকর্ষণীয় তথ্যের প্রতি আপনার পথ উন্মোচিত করে দেবে। রাশিফল ২০১৫ মকররাশিকে বিশ্ব থেকে নিজেকে লুকোনো থামিয়ে বরং তাদের ক্ষমতার ব্যবহার এবং সৌভাগ্য লাভে সচেষ্ট হতে বলে।

২০১৫ এর শুরু মকররাশির জন্য সাফল্যময়। বিশেষ করে পেশার জন্য এটি সঠিক সময়। আপনি অনেক মূল্যবান তথ্য এবং দরকারী মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখেন। এর সুযোগ নিতে পিছপা হবেন না। পথপ্রদর্শক হিসেবে বা অর্থ প্রাপ্তির মাধ্যমে আপনার পুরস্কার নিশ্চিত। বছরের পুরো প্রথমার্ধে কর্মক্ষেত্রে আপনার উন্নতি অনিবার্য। যদি আপনি সাফল্যের মোহে অন্ধ যান তবে এই গ্রীষ্মে পরিবর্তন আসতে পারে। আপনি অসতর্ক থাকলে অনেক কিছুই হারাবেন।

বছরের শেষের দিকে মকররাশির সুসম্পর্ক গড়ে উঠতে শুরু করবে। দুর্ভাগ্যবশত শনি আপনাকে এক্ষেত্রে খুব বেশি সহযোগিতা করবে না। বসন্তে স্থায়ী অংশীদারদের মধ্যে মনমালিন্য হতে পারে। অপ্রীতিকর খবর পাবেন এবং ঈর্ষা আপনার পতনের কারণ হবে। যুক্তিতর্কে বলা কথায় পরে আপনাকে অনুতাপ করতে হতে পারে। আগের ব্যর্থতার পরে গ্রীষ্মে আপনি অনেক সহিষ্ণু হবেন। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে চেষ্টা করুন; আপনার আগ্রহ তাদের আনন্দ দেবে। আপনার বিবেকের অনুসন্ধান করুন এবং তা ঝালিয়ে নিন। আপনি যা ভাবছেন প্রেম তার চেয়েও কাছাকাছি থাকতে পারে। বিশেষ করে ২০১৫ সালের শেষ নাগাদ তা প্রমাণিত হবে। যারা একাকী এসময় তারা সত্ত্বার সঙ্গীর দেখা পেতে পারে এবং যারা সম্পর্কে আবদ্ধ, তাদের মধ্যে সম্প্রীতি ও শান্তির আগমন ঘটবে। আপনি বাড়িতে থাকলে, আপনার সম্ভাবনা খুব বেশী নেই। সমাজে মেশার চেষ্টা করেন উদাহরণস্বরূপ শিল্পকলায় ভর্তি হয়ে অথবা কোন নতুন খেলাধুলায় যোগ দিতে পারেন। হয়তো আপনার সঙ্গী সেখানে অপেক্ষা করছে।

কুম্ভ (জানুয়ারি ২০- ফেব্রুয়ারি ১৮):
রাশিচক্রে এই চিহ্ন শনি ও ইউরেনাস গ্রহের সাথে সম্পর্কিত, তাই এই চিহ্নের অধীনে জন্মগ্রহণকারী মানুষ প্রেরণাদায়ক, নমনীয় এবং অন্তর্দৃষ্টিসম্পন্ন।কিন্তু তাঁদের চরিত্র কিছুটা পরস্পরবিরোধী হয়। তাঁরা গুরুগম্ভীর এবং একই সাথে মিশুক। তাঁরা ভাল মেজাজে থাকলে, তাঁরা নিজেদের নিয়ে মজা করলে কোনো সমস্যা নেই। পাশাপাশি তাঁরা খুব বিচক্ষণ, চিন্তাশীল, তাঁরা যে কোন পরিস্থিতি সঠিকভাবে অনুমান করতে পারে, ফলে তাঁদেরকে ধোকা দেওয়া কঠিন। তাঁরা মুক্তি ও স্বাধীনতার জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে পারে যা অনেক সময় তাঁদের আত্মসম্মান ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

তাঁরা নিজেরাই তাঁদের পথ ও নিজেদের নিয়ম নিজেরাই তৈরি করতে পছন্দ করেন যা প্রচলিত নিয়মানুযায়ী আলাদা। যারা এই রাশির জাতক-জাতিকারা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে উদার, একরোখা, এবং মাঝেমধ্যে তাঁরা অন্যের হাতে মারা যায়। তাঁদের সুবুদ্ধি ও উদারতার জন্য তাঁরা সবসময় অন্যকে সাহায্য করার জন্য প্রস্তুতু ত্থাকে, কিন্তু বিচক্ষন ও গোপনভাবে। তাঁরা অন্যদের জীবনধারার ব্যাপারে সহনশীল। তাঁদের অসাধারন বুদ্ধিবৃত্তিক ক্ষমতা রয়েছে।

তাঁদের খুতের মধ্যে একটি হছে তাঁরা তাঁদের চিন্তাভাবনাগুলোকে বাস্তবায়িত করতে পারে না কেননা তাঁরা প্রায়ই তাঁদের মত পরিবর্তন করে। তাই তাঁদের আচরণ কখনও কখনও অনিশ্চিত, কিন্তু কিছু পরিবর্তন পূর্ব পরিকল্পিত কারন কুম্ভরাশির লোকেরা খুব চটপটে নয়। তাঁরা হতাশায় ভুগে থাকেন এবং তাঁরা সবকিছুতে ইতস্ততঃ বোধ করেন এবং তাঁদের বাজে সিদ্ধান্তের কারনে তাঁরা ভালো সুযোগ হারাতে পারেন।

তাঁদের নমনীয়তার জন্য, তাঁরা খুব সহজে নতুন মানুষের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারেন। এই সম্পর্কগুলো পরবর্তীতে তাঁদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু তাঁদের নিজের ব্যক্তিত্বের চেয়ে বড় না। বিয়ের ক্ষেত্রে, তাঁরা বিশ্বস্ত এবং নির্ভরযোগ্য সঙ্গী.

কুম্ভরাশি কঠিন কাজ পছন্দ করেন না, কিন্তু তাঁদের অধ্যবসায় ও পরিচিত বন্ধুদের সাহায্যের কারনে তাঁরা সফল।

মীন (ফেব্রুয়ারি ১৯- মার্চ ২০):
রাশিচক্রে এই সাইন জুপিটার এবং নেপচুন গ্রহের সাথে সম্পর্কযুক্ত। এই সাইনের অধীনে জন্মগ্রহণ করা মানুষ, প্রায়ই দ্বিধান্বিত এবং শৈশব থেকে তাঁদের ধারাবাহিকভাবে যত্ন নেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাঁরা বন্ধুভাবাপন্ন, অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং উদার। তাঁরা উচ্চাভিলাষী এবং ন্যায় বিচারের উন্নত ধারনা আছে। তাঁরা খুব কল্পনাপ্রবণ এবং বেশীরভাগ সময় কল্পনার রাজ্যে বসবাস করে। তাঁরা সব কিছুতেই অতি আগ্রহী যা কখনো কখনো অন্য মানুষকে বিরক্ত করতে পারে। তাঁরা অত্যন্ত কর্মচঞ্চল যাতে অন্যরা তাঁদের নার্ভাস বা অমনোযোগী বলে ভূল বুঝতে পারে।

তাঁদের ত্রুটিগুলোর একটি হচ্ছে সমঝোতার অভাব ও সাময়িক বিষণ্ণতা। কখনো কখনো তাঁরা দোটানায় ভুগে থাকেন যা পরবর্তীতে তাঁদের ব্যর্থতার কারন হতে পারে। তাঁরা তাঁদের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন না, এবং যখন কোন ফলাফল তাঁদের বিরুদ্ধে আসে, তখন তাঁরা অস্থির হয়ে যান। তাঁরা সাধারণত সন্দিহান থাকেন এবং তাঁরা কোন ফলাফল নিয়ে সন্তুষ্ট হন না। বহুমুখীটা মাঝেমধ্যে তাঁদের পরাজয়ের কারণ কেননা তাঁরা যা চান তা তাঁদের পক্ষে করা সম্ভব না, ফলে তাঁরা হীনমন্যতায় ভোগেন। এই ধরনের মানুষ সাধারনত ভুল বোঝাবুঝির শিকার হন এবং অন্যের প্রশংশা পাননা।

বন্ধুত্ব তাঁদের কাছে এতটাই গুরুত্বপূর্ণ যে তাঁরা তাঁদের বন্ধুর জন্য জীবনও উৎসর্গ করতে পারেন। যদি সম্ভব হত তবে তাঁরা তাঁদের বন্ধুদের সব সমস্যার সমাধান করে তাঁদেরকে সকল যন্ত্রণা লাঘব করে দিতো। তাঁদের বন্ধুদের সমস্যা তাঁদের নিজেদের মাথা ব্যাথায় পরিনত হয়। বৈবাহিক জীবনে তাঁরা সন্তুষ্ট নয় এবং বিশ্বস্ত নয়।

তাঁরা বিশ্বস্ত এবং ভালো কর্মচারী যদি তাঁদেরকে বুঝতে পারা যায় এবং উৎসাহ দেওয়া যায়। তাঁদের সম্পূর্ণ নিরাপদ কর্মসংস্থানের প্রয়োজন। এরা সুন্দর এবং আকর্ষণীয় জিনিস পছন্দ করে এবং শিল্পকলায় ভালো হয়।

comments (0) / Read More

/ Labels: , , , ,

২০১৫ সালের প্রেম, রোমান্স ও বিয়ে



রাশি মিলিয়ে জেনে নিন সম্পর্কের টানাপোড়েনে কেমন যাবে আপনার এই বছর






বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোলজারর্স সোসাইটি(বিএএস) সহায়তায় ২০১৫ সালে বিভিন্ন রাশির জাতক জাতিকাদের প্রেম, রোমাঞ্চ বিয়ের শুভাশুভ পূর্বাভাস জানাচ্ছেন অ্যাস্ট্রোলজার অ্যান্ড সাইকিক কনসালটেন্ট ফজলে আজিম
মেষ রাশি (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)
দ্বাদশ রাশির প্রথম ঘর মেষ রাশি। অধিপতি গ্রহ মঙ্গল। পঞ্চমপতি সিংহ রাশি। দুটোই অগ্নি রাশি। মেষ, সিংহ ধনু রাশির জাতক জাতিকাদের মধ্যে প্রেম বিয়ের সম্পর্ক শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অগ্নি রাশির সঙ্গে বায়ূ রাশির সম্পর্কও মন্দ হয় না। এছাড়া জুলাই পর্যন্ত সিংহ রাশিতে বৃহস্পতির শুভ প্রভাব থাকায় সময় প্রেম রোমাঞ্চ বেশ শুভফলদায়ক হবে বলে আশা করা যায়। প্রেমের সম্পর্কে পারষ্পারিক সহযোগিতা অনুপ্রেরণা অনেক জীবনের জন্য ইতিবাচক পরিবর্তনের সুযোগ তৈরি করবে
মেষে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় সময় অনেক সম্পর্ক পাকাপোক্ত হবে। এমনকি বিয়ের সম্ভাবনাও রয়েছে। তবে, জন্মলগ্ন চন্দ্রের অবস্থান ভেদে কারও ক্ষেত্রে সময়টি প্রতিকূল যেতে পারে। মেষ রাশি, মেষ লগ্ন মেষ রাশিতে চন্দ্রের অবস্থান থাকলে শুভফল পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি
মেষ রাশির বেকারদের কর্মলাভের সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। এর পেছনে অবশ্য প্রিয় মানুষটির অনুপ্রেরণা যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কোন বাধার কাছে মাথা নত না করলেই জীবনে সফল হওয়ার পথে আপনি ধাপে ধাপে এগিয়ে যাবেন। সোজা কথায় প্রেমের সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে প্রেমিককে বাধ্য হয়ে কর্মের দিক ঝুঁকতে হবে। এক্ষেত্রে সফল হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে
প্রেমঘটিত কারণে জুলাইয়ের পরবর্তী সময়ে আপনার মানসিক চাপ বাড়তে পারে। প্রেমের সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি, পারষ্পারিক বিশ্বাসের অভাব তৃতীয় পক্ষের অনুপ্রবেশ সন্দেহের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। এমনকি সম্পর্কে ভাঙনের পর্যায়েও যেতে পারে। সব মিলিয়ে বছরের প্রথমার্ধে আপনার জন্য বিষয়গুলো অনুকূল হলেও দ্বিতীয়ার্থে আপনাকে সচেতন থাকতে হবে। সিদ্ধান্ত নিতে হবে ঠাণ্ডা মাথায়
বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল-২১ মে)
রাশিচক্রের দ্বিতীয় ঘর বৃষ রাশি। পঞ্চমপতি কন্যা রাশি। উভয়ই মৃত্তিকা রাশি। বৃষ, কন্যা মকর রাশির মধ্যে প্রেম বিয়ের সম্পর্ক শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মৃত্তিকা রাশির সঙ্গে জল রাশির সম্পর্ক শুভ হয়
জুলাইয়ের ২২ তারিখে কন্যা রাশিতে প্রবেশ করবে শুভগ্রহ বৃহস্পতি। চতুর্থ থেকে পঞ্চমে বৃহস্পতির প্রবেশে বছরটি হয়ে উঠবে স্মরণীয়। বছরের প্রথমার্ধে পরিবারে নতুন সদস্যের আগমন ঘটতে পারে। পুরো বছরটি বিয়ের জন্য শুভ সম্ভাবনাময়। ফলে অবিবাহিতদের বিয়ের প্রচেষ্টা সফল হতে পারে
জুলাইয়ে নবমে বৃহস্পতির দৃষ্টি থাকায় বিদেশে উচ্চশিক্ষার দ্বার খুলে যেতে পারে
কাজে বিড়ম্বনা থাকলেও ধৈর্য নিয়ে এগুতে হবে। আপাতত বিড়ম্বনার পেছনেই সাফল্যের গোপন রহস্য লুকিয়ে আছে। বলা যেতে পারে আপনি জীবনে সফল হওয়ার মূলসূত্র বা পাসওয়ার্ড হাতে পেতে চলছেন। সহজেই যে তা পেয়ে যাবেন তা নয়। আপনাকে নিরলস প্রচেষ্টা ধৈর্যসহকারে এগিয়ে চলতে হবে
বছরজুড়ে সম্ভাবনাময় একেকটি বাধা বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে অতিক্রমের মাধ্যমে আপনি প্রেম বিয়ের সম্পর্কে সফল হবেন বলে আশা করা যায়
মিথুন রাশি (২২ মে-২১ জুন)
রাশিচক্রের তৃতীয় ঘর মিথুন রাশি। মিথুন রাশির পঞ্চমপতি তুলা রাশি। উভয়ই বায়ু রাশি। মিথুন, তুলা কুম্ভ রাশির মধ্যে প্রেম বিয়ের সম্পর্ক শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়
বায়ু রাশির সঙ্গে অগ্নি রাশির সম্পর্ক ভালো হয়। বায়ু যেমন আগুন জ্বলতে সহায়ক হয় তেমনি বায়ু রাশির সংস্পর্শে অগ্নি রাশির জাতক জাতিকাদের জীবনে সাফল্য প্রাচুর্য লাভ করা সহজসাধ্য হয়ে ওঠে। সময় স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীদের প্রতি বাবা-মায়ের বিশেষভাবে খেয়াল রাখার প্রয়োজন হবে। অন্যথায় পারিবারিক নানান ঝামেলার সৃষ্টি হতে পারে
বছরের প্রথমার্ধে প্রেমের সম্পর্ক বেশ ভালো যেতে পারে। মিথুন রাশির জাতক জাতিকা বুদ্ধিমান হিসেবি হয়। তাই সঙ্গীর পেছনে বাড়তি খরচ করতে গিয়ে যাতে বেকায়দায় পড়তে না হয় সেদিকে সচেতন হতে হবে। একথা নিশ্চয়ই ভুলে গেলে চলবে না, যারা হিসেবি তারা বেহিসেবিদের খুব বেশি পছন্দ করে না
অসম সম্পর্ক তারুণ্যের ক্ষণিকের ভালোলাগা পারিবারিক অশান্তির কারণ হতে পারে
মিথুন রাশির জাতক জাতিকাদের বিয়েতে সাময়িক দীর্ঘসূত্রিতা দেখা যেতে পারে। সময়টুকু পারষ্পারিক বোঝাপড়ার জন্য যথেষ্ট
নতুন সম্পর্কের ব্যাপারে আপনাকে বুঝেশুনেই এগুতে হবে। বছরজুড়ে প্রতিটি সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে ভবিষ্যত পরিণতি সম্পর্কে আগেই ভেবে নিন। নতুন চুক্তি ঝুকিঁপূর্ণ। আপনাকে সচেতনভাবে ঠাণ্ডামাথায় সিদ্ধান্ত নিতে হবে। প্রেম রোমাঞ্চে হাবুডুবু না খেয়ে তা পরিমিত পর্যায়ে রাখুন। নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ না থাকলে আপনাকে মানসিকভাবে চাপের মুখে থাকতে হতে পারে
সবমিলিয়ে একটাই কথা, প্রেম সাগরে হাবুডুবু না খেয়ে বাস্তবজীবনের প্রতিও মনোযোগি হোন
কর্কট রাশি (২২ জুন-২২ জুলাই)
রাশিচক্রের চতুর্থঘর কর্কট রাশি। কর্কট রাশির পঞ্চমপতি বৃশ্চিক রাশি। দুটোই জল রাশি। কর্কট রাশির সঙ্গে বৃশ্চিক মীন রাশির প্রেম বিয়ে শুভ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। জল রাশির সঙ্গে অগ্নি রাশি মেষ, সিংহ ধনু রাশির সম্পর্ক সবসময় ভালো হয় না। চলতি বছর প্রেম রোমাঞ্চের ক্ষেত্রে আপনাকে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। কর্কটের সপ্তমপতি শনি ষষ্ঠে থাকায় বিয়ের ক্ষেত্রে বোঝাপড়ার মাধ্যমে এগুতে হবে। জুলাইতে কন্যা রাশিতে বৃহস্পতির প্রবেশ মকরে দৃষ্টির প্রভাবে প্রেম বিয়ের বিষয়ে অগ্রগতির সম্ভাবনা রয়েছে। কর্কট রাশির জাতকরা প্রচণ্ড জেদী অভিমানী হয়। তাই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় তাড়াহুড়া করলে ভুল হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি
বছরের প্রথমার্ধে প্রেমের সম্পর্কে ভুলবোঝাবুঝির সম্ভাবনা রয়েছে। তাই সচেতনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে হবে
সিংহ রাশি (২৩ জুলাই-২৩ অগাস্ট)
রাশিচক্রের পঞ্চমঘর সিংহ রাশি। সিংহ রাশির পঞ্চম ঘর ধনু। উভয়ই অগ্নি রাশি। অগ্নি রাশির সঙ্গে বায়ু রাশি মিথুন, তুলা কুম্ভ রাশির সম্পর্ক ভালো হয়। উক্ত রাশিতে বৃহস্পতি জুলাই পর্যন্ত অবস্থান করবে। সময়ে বিয়ের আলোচনায় অগ্রগতি দেখা যাবে
ধনু রাশিতে শনি থাকায় প্রেমের সম্পর্কে ফাটল দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সবার ক্ষেত্রে যে একই রকম ঘটনা ঘটবে তা নয়। কারণ সিংহ রাশি, সিংহ লগ্ন সিংহ রাশিতে চন্দ্রের অবস্থান থাকলে ঘটনাগুলোর সম্ভাবনা বেশি। শুভ কাজগুলো বছরের শুরুতেই করার চেষ্টা করলে সফল হতে পারেন। সময়ে নিজের ব্যক্তিত্বের বিকাশ সহজ হবে
বছরের প্রথমার্ধে অনেক তরুণ-তরুণী প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়বেন। এক্ষেত্রে সঙ্গীকে অন্ধ বিশ্বাস করলে ভুল করবেন। ক্ষণিকের সম্পর্ক হতে পারে হৃদয়ের রক্তক্ষরণের কারণ। তাই বিষয়ে সচেতন হোন। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রোধে আগে থেকেই সচেতন হোন। আপনার সচেতনতা ইতিবাচক জীবনদৃষ্টি নেতিবাচক ঘটনার প্রভাব থেকে মুক্ত থাকতে সহায়ক হবে
কন্যা রাশি (২৪ অগাস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)
রাশিচক্রের ষষ্ঠঘর কন্যা রাশি। কন্যা রাশির পঞ্চম ঘর মকর। কন্যা মকর দুটোই মৃত্তিকা রাশি। মৃত্তিকা রাশির সঙ্গে জল রাশি কর্কট, বৃশ্চিক মীন রাশির সম্পর্ক সাধারণত ভালো হয়। অগ্নি রাশির সঙ্গে প্রেম বিয়ে সাধারণত খুব বেশি সুখের হয় না। আগুন পানির সম্পর্ক যেমন বিপরীতমুখী তেমনি বাস্তব জীবনেও একই প্রভাব পড়ে। ধরনের সম্পর্কের ব্যাপারে সচেতন থাকুন
বছরের দ্বিতীয়ার্ধে বৃহস্পতি কন্যা রাশিতে প্রবেশ করবে। সময় অবিবাহিতদের বিয়ের বিষয়ে পারিবারিক তৎপরতা বেড়ে যাবে। তরুণ প্রজন্মের মাঝে একাধিক প্রেমের সম্পর্কের খবর ফাঁস হয়ে যেতে পারে। বাস্তবমুখী খুঁতখুঁতে স্বভাবের কারণে প্রেম বিয়ে নিয়ে দীর্ঘসূত্রিতার দেখা যাবে
বছরের প্রথমার্ধে সব ধরনের সম্পর্কের ব্যাপারে আপনাকে সচেতন হতে হবে। সময়ে আর্থিক ব্যয় বেড়ে যেতে পারে। বেশি ব্যয় নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করুন
তুলা রাশি (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)
রাশিচক্রের সপ্তম ঘর তুলা রাশি। তুলা রাশির পঞ্চম ঘর কুম্ভ। উভয়ই বায়ু রাশি। বায়ু রাশি তুলার সঙ্গে অগ্নি রাশি মেষ, সিংহ ধনুর সম্পর্ক সাধারণত ভালো হয়। তবে মৃত্তিকা রাশির সঙ্গে বায়ু রাশির সম্পর্ক বেশি ভালো হয় না। বায়ু যেমন মাটিকে শুকিয়ে ফেলে, তেমনি বায়ু রাশির লোকদের সঙ্গে মৃত্তিকা রাশির সম্পর্কও বিপরীতমূখী
তুলা কুম্ভ উভয়ই কর্তব্যপরায়ণ বন্ধুসুলভ আচরণের মাধ্যমে সহজেই অন্যকে আপন করে নিতে পারেন। এদের প্রতি অন্যরা আকৃষ্ট হন। তুলা রাশির বন্ধুর সংখ্যা বেশি হয়ে থাকে। এরা সবসময় আন্তরিকভাবে অন্যের খোঁজ খবর রাখেন। তাই সহজেই অন্যরা এদের স্নেহ ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়েন
বছরের প্রথমার্ধে একাদশে বৃহস্পতির অবস্থানে সবকিছু পরিকল্পনা মতো এগুবে বলে আশা করা যায়। এজন্য অবশ্য পরিকল্পনা মতো কাজ করতে হবে। প্রেম বিয়ের ক্ষেত্রে অপ্রত্যাশিত ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। অনেকের ক্ষেত্রে অল্প সময়ের মধ্যেই বিয়ের কথাবার্তা চুড়ান্ত হতে পারে। তৃতীয়ে শনির অবস্থান যোগাযোগে বিঘ্ন ঘটাতে পারে। তুলা রাশির জাতকেরা সাধারণত বিশ্লেষণী ক্ষমতাসম্পন্ন হয়ে থাকে। তৃতীয় পক্ষের দিয়ে প্রভাবিত না হলে সম্পর্ক ভালো যাবে বলে আশা করা যায়। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে আর্থিক ব্যয় বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে
বৃশ্চিক রাশি (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)
রাশিচক্রের অষ্টম ঘর বৃশ্চিক। বৃশ্চিক রাশির পঞ্ম ঘর মীন। দুটোই জল রাশি। জল রাশির সঙ্গে বায়ু মৃত্তিকা রাশির সম্পর্ক সাধারণত ভালো হয়। অগ্নি রাশির সঙ্গে সাধারণত জল রাশির সম্পর্ক খুব ভালো হয় না। মীন রাশির অধিপতি গ্রহ বৃহস্পতি মীন থেকে ষষ্ঠে থাকায় বছরের প্রথমার্ধ মানসিকভাবে চাপের মুখে থাকতে হতে পারে
পারিপার্শ্বিক প্রতিকূলতা খেয়ালীপনার কারণে প্রেমে জটিলতা এমনকি ভাঙন হতে পারে। বৃশ্চিক রাশির জাতক সাধারণত জেদী হয়ে থাকে। এরা কাজে মনোযোগী দৃঢ় প্রত্যয়ী। মীন রাশির সঙ্গে এদের সম্পর্ক সাধারণত ভালো হয়। এরা একসঙ্গে মিলেমিশে কাজ করতে পারে। মনের মতো সঙ্গী পেলে এরা আপাত অসাধ্যকে সাধন করতে পারে
ধনু রাশি (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)
রাশিচক্রের নবম ঘর ধনু রাশি। ধনু রাশির পঞ্চম ঘর মেষ। উভয়ই অগ্নি রাশি। উদ্যমী তেজ থাকায় এরা জীবনে সফল হয়। এরা সহজে সম্পর্কে জড়ায় না। আবার জড়ালে সম্পর্কের প্রতি পূর্ণ আস্থা বিশ্বাস থাকে। ধনুর রাশির সঙ্গে মিথুন, তুলা কুম্ভ রাশির সম্পর্ক সাধারণ ভালো হয়। জল রাশির সঙ্গে অগ্নি রাশির সম্পর্ক সাধারণত বেশি ভালো হয় না। এর কারণ হচ্ছে উভয়ের আচরণে বিপরীত বৈশিষ্ট থাকায় মনের মিল কম হয়। তাই প্রেম বিয়ের সম্পর্কে বিষয়গুলোতে সচেতন থাকা জরুরি
ধনু রাশির জন্য বছরের প্রথমার্ধ শুভ সম্ভাবনাময়। একবার বেঁকে গেলে ধনু রাশির লোকদের কোন কিছু বোঝানো মুশকিল
ধনু রাশির জাতক-জাতিকা সাধারণত মেধাবী হন। মেষ রাশির জাতকেরা যেমন হন উচ্চাকাঙ্ক্ষী তেমনি অদম্য মেধাবী। তাই স্বাভাবিকভাবেই ধরনের জুটি জীবনে সফল হন। ধনু রাশির জাতক জাতিকার জন্য জুলাই পর্যন্ত সময়টি শুভ সম্ভাবনাময় প্রেম রোমাঞ্চের ক্ষেত্রে ধনু রাশির জাতকদের বিশেষ সচেতনতার প্রয়োজন হবে। কারণ মেষ রাশিতে অপ্রত্যাশিত ঘটনারকারক ইউরেনাস অবস্থান করায় যে কোন মুহূর্তে প্রেমের সম্পর্কে জড়ানোর সম্ভাবনা যেমন রয়েছে তেমনি ভাঙনের ঝুঁকিও রয়েছে। তাই সময় সাবধানতা অবলম্বন করা হবে বুদ্ধিমানের কাজ
মকর রাশি (২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)
রাশিচক্রের দশমঘর মকর রাশি। মকর রাশির পঞ্চমঘর বৃষ। উভয়ই মৃত্তিকা রাশি। মৃত্তিকা রাশির সঙ্গে জল রাশির সম্পর্ক ভালো হয়। মকর রাশির জন্য জুলাইয়ের পরবর্তি সময় বেশি শুভ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে সময় বেছে নেওয়া যেতে পারে। মকর রাশির সঙ্গে বৃষ রাশির সম্পর্ক ভালো হয়। মকর রাশির জাতক সাধারণত ধীরস্থির কর্মঠ। বৃষ রাশির জাতক গুছিয়ে কাজ করতে পছন্দ করে। বিশ্লেষণী ক্ষমতা থাকায় শুভ কাজে একজন অন্যজনের পাশে থাকে
মকর রাশির জাতক সাধারণত সম্পর্কে জড়ায় না। এরা যাকে বিশ্বাস করে তাকে পুরোপুরি বিশ্বাস করে। তবে সন্দেহপ্রবণ হওয়ায় নিজেরাই মানসিক অস্বস্তিতে ভোগে। এদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারলে সম্পর্ক মধুর হয়। এদের যুক্তি দিয়ে বোঝাতে হয়। মকর রাশির জাতকদের জন্য জুলাই পূর্ববর্তী সময় খুব বেশি অনুকূল নয়। বিশেষ করে প্রেমের সম্পর্কে একবার অবিশ্বাস তৈরি হলে তা টিকিয়ে রাখা কঠিন হবে। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে অবিবাহিতদের বিয়ের সম্ভাবনা রয়েছে
কুম্ভ রাশি (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)
রাশিচক্রের একাদশঘর কুম্ভ। কুম্ভ রাশির পঞ্চম ঘর মিথুন রাশি। উভয়ই বায়ূ রাশি। বায়ূ রাশির সঙ্গে অগ্নি জল রাশির সম্পর্ক ভালো হয়। কুম্ভ মিথুন রাশির জাতক জাতিকাদের সম্পর্ক সাধারণত ভালো হয়। মিথুন রাশির জাতক যোগাযোগে দক্ষ উপস্থিত বুদ্ধিসম্পন্ন। এরা একসঙ্গে একাধিক কাজ করতে পারে। কুম্ভ রাশির জাতকও যোগাযোগে দক্ষ। তবে মিথুন রাশির জাতকের মতো সহজেই অন্যের সঙ্গে মিশতে পারে না। এরা ভাবুক প্রকৃতির। একাকী থাকতে বেশি পছন্দ করে
বছরের প্রথমার্ধে কুম্ভ রাশির জাতক জাতিকাদের বিয়ের কথা পারিবারিকভাবে এগুতে পারে। কুম্ভ রাশির জাতকের জীবনে অপ্রত্যাশিত ঘটনা বেশি ঘটে। এদের প্রত্যাশা প্রাপ্তির মধ্যে সাধারণত খুব বেশি মিল থাকে না বলে প্রচলিত। তাই প্রেমের সম্পর্কে এরা সহজে জড়াতে চায় না। ভালোবাসার জন্য এরা ত্যাগ স্বীকার করতে পিছপা হয় না। এরা বিজ্ঞানমনষ্ক। তাই যুক্তি দিয়ে এদের বোঝাতে হয়
এরা একগুঁয়ে। সহজেই নিজের ইচ্ছার পরিবর্তন করে না। পারষ্পারিক ভুল বোঝাবুঝির কারণে সম্পর্কে জটিলতা দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ধীরস্থির আরামপ্রিয়তা থেকে মুক্ত হতে পার